স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: আরও একবার মোমোর কোপ জেলায়৷ প্রথমে জেলার খড়গ্রাম থানা এলাকার মেহেরুল আলম৷ তারপর কান্দির ছাতিনাকান্দির বাসিন্দা এক স্কুল ছাত্র৷ নাম মৃন্ময় সিদ্ধান্ত৷ কান্দি রাজ উচ্চ বিদ্যালয় একাদশ শ্রেণির ছাত্র সে৷

আরও পড়ুন: আপনার চুলই বলে দেবে আপনি মানুষ কেমন!

অভিযোগ, বুধবার দুপুরে মোমো নাম ও ছবি দিয়ে একটি ইন্টারন্যাশনাল নম্বর থেকে ওই ছাত্রের কাছে মেসেজ আসে৷ আর পাঁচজনের মতো তার হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরেই মেসেজ পাঠায় মোমো। এই ঘটনার জেরে রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়ে একাদশের ওই ছাত্র৷ পরিবারের সকলকে বিষয়টি জানিয়ে এদিন সন্ধ্যায় কান্দি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় ওই ছাত্রের পরিবার থেকে৷ মোমোর কোপ যে ভাবে বিস্তার হয়ে চলেছে তাতে আতঙ্কিত ছাত্রের বাবা মাও৷ তাদের চিন্তা এই খেলার ফাঁদে যেন তাঁদের ছেলে পা না দেয়৷

আরও পড়ুন: হাতের ট্যাটুতে বাবার মোবাইল নম্বরই ফিরিয়ে দিল ‘অসুস্থ’ ছেলেকে

উল্লেখ্য, এর আগে খড়গ্রাম থানার নগর এলাকার বাসিন্দা মেহেরুল আলম বুধবার কান্দি পুরসভা আসেন তার কন্যার জন্ম সার্টিফিকেট নিতে। কান্দি পুরসভা পৌঁছনোর পরই তাঁর মোবাইলে মোমো ছবি ও নাম দিয়ে একটা হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ আসে৷

বারবার মোমোর নম্বর থেকে কলও করা হয় মেহেরুলকে৷ জানানো হয় তাঁর মোবাইল সহ সমস্ত কিছু হ্যাক করা হয়ে গিয়েছে। মোট আটটি মেসেজ তাঁর মোবাইল এলে সে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন৷ ফলে তড়িঘড়ি কান্দি থানায় গিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মেহেরুল আলম।

--
----
--