নয়াদিল্লি: সমকামিতা কি অপরাধ, সেই সুপ্রিম রায় আজ বৃহস্পতিবার৷ ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুসারে সমকামিতা অপরাধ হিসেবে গন্য করা হবে কি না, সেই রায় দান করবে সু্প্রিম কোর্ট৷ প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বে ৫ বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ রায় দেবেন৷

২০১৩ সালে সুপ্রিম কোর্টে সমকামিতারকে অপরাধমূলক বলে ব্যখ্যা দেওয়া হয়৷ কয়েকদিন আগে সেই ব্যখ্যার পুনর্বিবেচনা করা হয় সুপ্রিম কোর্টে৷ তবে, দীর্ঘ শুনানির পরও সঠিক ব্যখ্যা দিতে পারেনি সুপ্রিম কোর্ট৷ সেই পুনর্বিবচেনা মামলার রায়দান আজ৷ ১২ অগাস্ট ৩৭৭ ধারা বাতিলের পক্ষেই মত দেয় দীপক মিশ্রের গঠিত ৫ সদস্যের বেঞ্চ৷ তারা জানান, সংবিধানের ৩৭৭ ধারা সমকামিদের প্রতি বিভেদ সৃষ্টি করছে৷ তাদের সামাজিক কলঙ্কের চোখে দেখা হয়৷ এই বৈষম্য তখনই দূর হবে যদি ৩৭৭ ধারা বাতিল করা যেতে পারে৷

Advertisement

পড়ুন:দলিতদের ডাকে দেশজুড়ে ‘ভারত বনধ’

সুপ্রিম কোর্টের এই পর্যবেক্ষণেই খুশি হয় এলজিবিটি আন্দোলনকারীরা৷ দীর্ঘদিন সমকামিতাকে আইনি স্বীকৃতি দেওয়ার যে লড়াই তারা শুরু করেছিলেন তা এবার মান্যতা পেতে চলেছে বলে তাদের দাবি৷সাংবিধানিক বেঞ্চ সেদিন জানায়, ১৫৮ বছর পুরানো একটি আইন দেশের মধ্যে বৈষম্যের পরিবেশ তৈরি করেছে৷ যা এখন এতটাই গভীরে চলে গিয়েছে যে সমকামিদের হীন চোখে দেখা হয়৷ বেঞ্চ মনে করে, এর ফলে সমকামীদের মধ্যে মানসিক অবসাদ তৈরি হচ্ছে৷ তারা মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ছে৷

সুপ্রিম কোর্ট পাঁচ বছর আগে দিল্লি হাইকোর্টের রায় বাতিল করে ৩৭৭ ধারাকে পুর্নবহাল করে৷ সেই রায় আবার পুর্নবিবেচনা করার আশ্বাস দিয়ে শীর্ষ আদালতে শুরু হয় শুনানি৷ ১৮৬১ সালে ব্রিটিশ আমলে তৈরি হওয়া ৩৭৭ ধারা আনুযায়ী সমকামি প্রকৃতিবিরুদ্ধ যৌন সম্পর্ক৷ এই ধারা অনুযায়ীসমকামিতা শাস্তিযোগ্য অপরাধ৷ সর্বোচ্চ দশ বছর সাজা এবং জরিমানার বিধানও রাখা হয়েছে এই ধারায়৷

এরই বিরুদ্ধে নামি আইনজীবীরা এক জোট হয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে৷ যেখানে ব্রটিশ যুগের আইন ধরে বসে থাকার কোমও কারণ নেই বলেই জানান তারা৷ পাশাপশি, সংবিধান মেনে মৌলিক অধিকারের ব্যখ্যা দিয়ে সমকামিতাকে স্বাভাবিক বলেই দাবি করা হয়৷ সমকামি কোনওভাবে মৌলিক অধিকারের ১৮,১৯,২১ নং ধারার নিয়ম লঙ্ঘন করছে কি না, তাই আজ খতিয়ে দেখে রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট৷

----
--