স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভায় নেতাদের বার্তা শোনা হয়ে উঠল গৌণ। মুখ্য সোশ্যাল মিডিয়ার ছবি আপডেট এবং লাইভের মাধ্যমে নিজের উপস্থিতি তুলে ধরা। সেলফি, ফেসবুক লাইভ। এতেই সর্বক্ষণ মজে রয়েছে জেন ওয়াই। এসবের ঘনঘটার চিত্র যে তৃণমূল কংগ্রেস ছাত্র পরিষদের সভাতে থাকবে এতে কোনও অস্বাভাবিকতা নেই। কিন্তু এসবের বাড়বাড়ন্ত নজরে মঙ্গলবারের সভায়।

Advertisement

অন্যের নজর নিয়ে কেয়ার করে না এযুগের ছাত্রদল। সেই ছবি স্পষ্ট তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জন্মদিবসের উদ্দেশ্যে ডাকা জনসভায়। সভা শুরু হওয়ার কথা ছিল দুপুর বারোটায়। সভা শুরুর অনেক আগে থেকেই মেয়ো রোড ভরাতে শুরু করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস ছাত্র পরিষদের কর্মীরা।

আরও পড়ুন: প্রকাশ্যে ধূমপান রুখতে তৎপর কোতোয়ালি থানার পুলিশ

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সবার ‘নাম কীর্তন’ করতে করতে হাজির হয়েছিল ছাত্র ছাত্রীর দল। কেউ এসেছেন মেদিনীপুর থেকে কেউ এসেছেন উত্তরবঙ্গের মালদহ জেলা থেকে। দার্জিলিং থেকেও ছাত্র ছাত্রীরা যোগ দিতে এসেছে সভায়। কিন্তু এঁদের উদ্দেশ্য বোঝা মুশকিল।

যে দিকেই তাকানো যায় সেদিকেই পাউট করে সেলফি তোলার চেষ্টা, নানারকম পোজ দিয়ে গ্রুফি তোলার বহরও রয়েছে। ধরা পড়ল ফেসবুক লাইভের চিত্রও। সে দুই জন দেখুক কিংবা তৃণমূলের জনসভায় উপস্থিত দেখতে কেউ ইচ্ছুক না হোক লাইভে থাকা অতি আবশ্যক।

আরও পড়ুন: মোমো আতঙ্ক এবার হরিদেবপুরে

সভা শুরু হওয়ার আগে পর্যন্ত এসব চলতেই পারে। ঠায় রোদে বসে বসে কিই বা করতে পারে আজকের তরুণ তরুণীরা। নেই কাজের থেকে খই ভাজা ভালো। তাই চলতেই পারে ফেবু, সেলফি, ভেলফি, গ্রুফি। সভা শুরু হয় নির্ধারিত সময়ের প্রায় মিনিট কুড়ি পড়ে। অর্থাৎ ১২টা২০ নাগাদ।

মা, মাটি , মানুষের গান চলছে। অপরদিকে সেলফির খচখচানিও চলছে। চলছে লাইভে আবোল তাবোল বকে যাওয়া। কিছু না বলার থাকলে শুধুই চারিদকের দৃশ্য দেখানও চলছে। তখনও চলতেই পারে এসব। অরিজিৎ সিং, বাদশাদের যুগে কার ভালো লাগবে মা, মাটি, মানুষের গান?

আরও পড়ুন: জাতীয় সড়কে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় পাঁচজনের মৃত্যু

কিন্তু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় স্টেজে উঠেছেন। বক্তব্য রাখছেন। সামনের আসনে যারা বসে আছে তাদের বেশ মনোযোগ সহকারে ভাষণ শুনতে দেখা গেল। একটু পিছন দিকে চোখ ঘোরাতেই নজরে এল সেই সেলফি ঝড়ের। ক্রমাগত চলছে মোবাইল ক্যামেরার ক্লিক ক্লিক।

কিছুক্ষণ বাদে মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি তাঁর ‘দামাল ছাত্রদের’ উদ্বুদ্ধ করতে চেষ্টা করছেন। কিন্তু কে কার কথা শোনে। এবারে ঘটনা আরও চমকদার। ফ্রন্ট ক্যামেরা জুম করে মঞ্চে বক্তব্যরত মমতা বন্দ্যপাধ্যায়কে পর্দায় রেখে সেলফি তোলার চেষ্টা।

আরও পড়ুন: অ্যাথলেটিক্সে সোনার দিন ভারতের

আর ফেসবুক লাইভের এবার ছড়াছড়ি। যে যেখান থেকে পারল ফেসবুক লাইভ করার চেষ্টা হল। স্টেজের সামনে নেটওয়ার্ক কাজ না করায় বহু ছাত্র ছাত্রীর মুখে চোখে বিরক্তি। ভাবটা যেন এমন যে ‘চুলোয় যাক ভাষণ, সভায় আছি শুধু আমি।’

সেলফি, ফেসবুক লাইভ প্রসঙ্গে ছাত্র নেত্রী মৌমিতা বললেন, “কে কিভাবে সেলফি তুলল এটাতে আমরা না করতে পারি না। এটা দোষের কিছু নয়। এটা যে যার নিজস্ব ব্যপার।” একইসঙ্গে তিনি বলেন, “আমার মনে হয় এটা দল এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অন্য নেতাদের প্রতি এটা ভালোবাসা। অনেকে সভায় যোগ দিতে তিন চার দিন আগে আসে নেতা নেত্রীদের একবার চোখের দেখা দেখতে। চোখের সামনে দেখতে পেলে তাই সেই মুহূর্তটাকে বন্দি করে নিয়ে যেতে চায়। বাকিটা ব্যক্তিগত।”

আরও পড়ুন: মমতার সুর অধীরের গলায়

----
--