আলাদা ‘তিস্তা তোর্সা প্রান্ত’ রাজ্যের দাবি উত্তরবঙ্গে!!

স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: উত্তরবঙ্গের আট জেলা নিয়ে আলাদা ‘তিস্তা তোর্সা প্রান্ত’রাজ্যের দাবিতে আন্দোলনে নামতে চলেছে উত্তরবঙ্গ জনমুক্তি মঞ্চ। কোচবিহার প্রেস ক্লাবে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করে সংগঠনের পক্ষ থেকে একথা জানানো হয়। সেপ্টেম্বর মাস ব্যাপী উত্তরবঙ্গের আট জেলায় তাঁদের দাবি দাওয়া নিয়ে জেলা শাসকদের স্মারকলিপি জমা দেওয়া হবে।

আলাদা রাজ্যের দাবির পাশাপাশি তাঁরা উত্তরবঙ্গের কোচবিহার ও রায়গঞ্জে এইমস স্থাপন, উত্তরবঙ্গের সম্পদ ব্যবহার করে উত্তরবঙ্গের উন্নয়নে কাজ করা ইত্যাদি দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছে।গত বছর তৈরি হয়েছে উত্তরবঙ্গ জনমুক্তি মঞ্চ। এই সংগঠন উত্তরবঙ্গের উন্নয়নের পাশাপাশি আলাদা রাজ্যের দাবি করেছে এই মঞ্চ। তবে বড়সড় আন্দোলন না হোলেও ধীরে ধীরে এই সংগঠনের জনপ্রিয়তা বাড়ছে৷ এমনই দাবি করছে সংগঠনের নেতৃত্ব।

পড়ুন:পড়ুয়াদের জন্য স্পেশাল কাউন্সিলিং সেন্টার চালু হচ্ছে জলপাইগুড়িতে

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক উত্তম নন্দীর দাবি, স্বাধীনতার পর থেকে অবহেলিত উত্তরবঙ্গ৷ কোনও সরকার উত্তরবঙ্গের উন্নয়নে নজর দেয়নি৷ এই অবহেলিত অবস্থা থেকে একমাত্র মুক্তি দিতে পারে আলাদা রাজ্য। সেই দাবিতেই তাঁদের এই আন্দোলন। এদিন সংগঠনের সভাপতি গৌতম দাস বলেন, ‘‘এই সংগঠন কোনও রাজনৈতিক সংগঠন নয়৷ উত্তরবঙ্গের মানুষের দাবি আদায়ের জন্য গড়ে ওঠা অরাজনৈতিক সংগঠন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলি অবহেলিত উত্তরবঙ্গের মানুষের শুধু ভোট নিয়েছে৷ তাঁদের উন্নয়ন করেনি৷ তাই এই অরাজনৈতিক সংগঠনের জন্ম।’’ পাশাপাশি এদিন তাঁরা জানান, সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসের উত্তরবঙ্গের সকল জেলা শাসকের কাছে স্বারকলিপি দেওয়া হবে।

এর আগে তাঁদের দাবি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যপাল এমনকি রাষ্ট্রপতির কাছেও স্বারকলিপি জমা দেওয়া হয়েছে। স্বারকলিপি জমা দেওয়ার পর প্রয়োজনে আলাদা রাজ্যের দাবিতে অনশন করবে বলেও জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। এদিন সংগঠনের অন্য এক সাধারণ সম্পাদক শীতল দাস বলেন, ‘‘এখানে গ্রেটার কোচবিহার, কামতাপুর, বা গোর্খাল্যান্ড নিয়ে যে আলাদা রাজ্যের দাবি করা হচ্ছে, তা জাতি ভিক্তিক৷ আমাদের আন্দোলন মানুষের, কোনও নির্দিষ্ট জাতির নয়।’’তবে, উত্তরবঙ্গেই ফের আলাদা রাজ্যের দাবি নতুন করে পরিস্থিতি অশান্ত করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷

----
-----