স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: ছাত্রীর যৌন নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষককে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিল আদালত৷ ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার ব্যাঁটরায়৷ ধৃত শিক্ষকের নাম মৃণাল চক্রবর্তী৷

ওই ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টা নাগাদ ব্যাঁটরার হেম চক্রবর্তী লেনের কোচিং সেন্টারে ওই ছাত্রী পড়তে যান। তার একা থাকার সুযোগ নিয়ে ওই শিক্ষক ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করে৷ এরপর ছাত্রী বাড়িতে এসে ঘটনার কথা তার পরিবারকে জানায়৷ ঘটনাটি ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা শোনা মাত্রই শিক্ষকের বাড়িতে চড়াও হয়। ওই শিক্ষককে রাস্তায় টেনে বের করে এনে ব্যাপক মারধর করে তাঁরা৷

Advertisement

শিক্ষকে মারধরের পর তার পরিবারের তরফ থেকে ছাত্রীর পরিবারের বিরুদ্ধেও ব্যাঁটরা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে৷ ভারতীয় দণ্ডবিধি আইনের ১৪৩, ৪৪৭, ৪৪৮, ৩২৩ ও ৪২৭ ধারায় অর্থাৎ গৃহে অনাধিকার প্রবেশ, সীমালঙ্ঘন, ক্ষতিসাধন, ইচ্ছাকৃতভাবে আঘাত করা এবং বেআইনিভাবে জড়ো হওয়া এই মামলায় ছাত্রীর পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে শিক্ষকের পরিবার।

ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে শিক্ষক মৃণাল চক্রবর্তীকে পুলিশ গ্রেফতার করে৷ শুক্রবার দুপুরে হাওড়া আদালতে তোলা হয়৷ অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪এ, ৩৫৪বি ও ৫০৯ ধারায় অর্থাৎ যৌন নির্যাতন, শারীরিক সংস্পর্শ স্থাপন এবং অশালীন আচরণের মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালত ধৃত শিক্ষককে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়৷

----
--