হায়দরাবাদ: বলা হয়, একজন বাবার কাছে সবথেকে খুশির এবং গর্বের বিষয় এই যে তার সন্তান যখন জীবনে সাফল্য অর্জন করে এবং তাঁদের থেকেও এগিয়ে যায়৷ এমনই এক উদাহরণ তুলে ধরা যায় তেলেঙ্গানা থেকে৷ ৩০ বছর ধরে পুলিশের চাকরি করছে এক ব্যক্তি, আর সেই ব্যক্তির মেয়ে বিগত ৪বছর ধরে ফোর্সে যুক্ত, কিন্তু রবিবার যখন সামনাসামনি হলেন বাবা-মেয়ে, তখন মেয়েকে স্যালুট করলেন বাবা৷

গল্পের হলেও বিষয়টা সত্যি, তেলেঙ্গানার জগতিয়াল জেলার এসপি সিন্ধু শর্মা এবং তাঁর বাবা ডেপুটি কমিশনার অব পুলিশ এআর উমেশ্বরা শর্মার কথা৷ সিন্ধু শর্মা সুপারিন্টেডেন্ট অব পুলিশ অর্থাৎ এসপি এবং ঘটনাচক্রে পদের দিক থেকে তিনি তাঁর বাবার থেকে সিনিয়র৷ সিন্ধু ২০১৪ ব্যাচের আইপিএস৷

Advertisement

পড়ুন: ছেলেদের জন্য জাতীয় পুরুষ কমিশন চালুর প্রস্তাব বিজেপি সাংসদের

বাবা-মেয়েকে তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতির কোংগারা কালন এলাকাতে একটি সমাবেশে সামনাসামনি হন, তখনই মেয়েকে স্যালুট জানান তাঁর বাবা৷ উমেশ্বরা শর্মা জানান, মেয়ে সামনে এলেই তিনি স্যালুট করেন এবং মেয়ের নির্দেশ মতোই কর্তব্য পালন করেন৷ আবার বাড়িতে এলে আবার ছবিটা অন্যরকম৷ বাবার আদরের মেয়ের সঙ্গে সময়টা কাটে আর পাঁচটা পরিবারের মতোই৷ আর মেয়ের এই সাফল্যে গর্বিত উমেশ্বরা৷

প্রসঙ্গত, রবিবার তেলেঙ্গানাতে টিআরএস-এর একটি সমাবেশে মহিলাদের সুরক্ষার দায়িত্বে ছিলেন সিন্ধু সর্মা৷ সেখানেই ডিউটি ছিল উমেশ্বরা শর্মার৷ এখানে ব়্যালিতে প্রায় ২০ লক্ষেরও বেশি মানুষ হাজির হয়েছিল৷ মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাওসহ টিআরএসের তাবড় তাবড় নেতা সেকানে উপস্থিত৷ আর এই সমাবেশেই মুখোমুখি হন এই বাবা-মেয়ে৷

----
--