ধর্ম অবমাননার কড়া আইন রুখতে চেয়ে মন্তব্য করেছিলেন৷ রক্ষণশীলতার বেড়া পার করা পাক মহিলা হিসেবে তিনি পরিচিত৷ প্রয়াত বেনজির ভুট্টোর ঘনিষ্ঠ৷ সবমিলে একাধিকবার উচ্চপদে আসীন শেরি রহমান এখন দেশটির বিরোধী নেত্রী৷ তৈরি হল নজির৷

ইসলামাবাদ:
পাকিস্তানের সংসদীয় ইতিহাসে প্রথমবার কোনও বিরোধী নেতার চেয়ারে বসতে চলেছেন মহিলা৷ জনপ্রিয় পাক রাজনীতিক শেরি রহমানকেই প্রধান বিরোধী নেত্রী করেছে তাঁর দল পিপিপি৷ ফলে তিনি নজির তৈরি করলেন৷ পাকিস্তান পিপলস পার্টির শীর্ষ নেত্রী শেহরবানু রহমান বেশি পরিচিত শেরি রহমান নামেই৷ পাক রাজনীতি তথা আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও তিনি পরিচিত৷

ইতিহাস অনুরাগী তথা ইতিহাস নিয়েই উচ্চতর ডিগ্রি নিয়েছেন শেরি রহমান৷ জন্ম ১৯৬০ সালে৷ The Kashmiri Shawl: From Jamawar to Paisley বইয়ের সহ লেখিকা তিনি৷

পাকিস্তানে ক্ষমতাসীন দল পিএমএল(এন)৷ প্রধানমন্ত্রী আসিফ খাকান আব্বাসি৷ প্রধান বিরোধী দল হিসেবে পাক সেনেটে বসেছে পিপিপি৷ ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে পিপিপি তাদের শীর্ষ নেত্রী শেরি রহমানকেই বিরোধী নেত্রী হিসেবে মনোনীত করেছে৷

প্রয়াত বেনজির ভুট্টোর ঘনিষ্ঠ শেরি রহমান কখনো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাক রাষ্ট্রদূত তো কখনো স্টেট ব্যাংক অফ পাকিস্তান(এসবিটি) -এর ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব সামাল দিয়েছেন৷ জীবনযাত্রায় আধুনিকা এই পাক নেত্রী বিতর্কে এসেছেন অনেকবার৷

তেমনই একটি বিতর্ক ছিল ধর্ম অবমাননা সংক্রান্ত আইনের বিরুদ্ধে গিয়ে মন্তব্য৷ এক টিভি অনুষ্ঠানে শেরি রহমান বলেছিলেন, এই কুখ্যাত আইন বরদাস্ত করা যায় না৷ ফলে তৈরি হয়েছিল বিতর্ক৷ কারণ ইসলাম পাকিস্তানের রাষ্ট্রধর্ম৷ যদিও সংবিধানে অন্যান্য ধর্মকে সুরক্ষিত করার কথা বলা হয়েছে৷ এদিকে ধর্ম অবমাননা সংক্রান্ত আইনের বলে মিথ্যে অভিযোগে বহু সংখ্যালঘু হিন্দু, শিখ, খ্রিষ্টান ও বৌদ্ধকে অত্যাচার করা হয়৷ সেই দিকটি তুলে ধরেছিলেন শেরি রহমান৷ বিষয়টি ঝড় তুলেছিল৷

----
--