এখনও সুন্দরবনে অপেক্ষা করছে এয়ার ফোর্সের হেলিকপ্টার

কলকাতা: জ্বলন্ত ভেসেল নেভাতে ফের ডাকা হতে পারে এয়ারফোর্সের হেলিকপ্টার। সুন্দরবনে অপেক্ষা করছে বায়ুসেনার Mi-17 V5 হেলিকপ্টার। আরও বেশি করে জল ঢালার জন্য ডাকা হবে ওই হেলিকপ্টার। সোমবারও ওই ভেসেল থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখা গিয়েছে।

তবে কোস্ট গার্ড নতুন করে কোনও আগুন চিহ্নিত করতে পারেনি। তবে ভেসেলের মাঝখান থেকে উঠছে ধোঁয়া। ইতিমধ্যেই বাম্বি বাকেট সিস্টেমে অন্তত ২০,০০০ লিটার জল ঢাকা হয়েছে ওই ভেসেলে। কোস্ট গার্ডের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘আগের মত ঘন ধোঁয়া আর দেখা যাচ্ছে না। তবে জাহাজটা আরও বেশি ঠাণ্ডা করা প্রয়োজন। কোথাও কোথাও আগুন জ্বললেও তা চোখে পড়ছে না। সিঙ্গাপুর থেকে বিশেষজ্ঞরা এসে দেখবেন, এখনও আগুন জ্বলছে কিনা।

কাঁকিনাড়ায় সাগর দ্বীপের কাছে MV SSL Kolkata-কে দেখতে রওনা দিয়েছে নয় বিশেষজ্ঞের একটি দল।

- Advertisement -

শনিবার সকালেও ফের বিস্ফোরণ হয়েছে সেই জাহাজে। আর সেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কমান্ডো নামায় নৌসেনা। কীভাবে মার্কোস অফিসারদের দিয়ে সেই অপারেশন চালানো হয়েছে, সেই ভিডিও পোস্ট করেছে নৌসেনা।

জ্বলন্ত অবস্থায় জাহাজটি এগিয়ে যাচ্ছিল বাংলাদেশের দিকে। এরপরই অপারেশন চালায় নৌসেনা। ওড়ানো হয় Sea King 42C হেলিকপ্টার।

MV SSL Kolkata জাহাজটি ২২ জন সদস্যকে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিল সাগর দ্বীপের দিকে। বঙ্গোপসাগরের মাঝে আগুন ধরে যায় ওই জাহাজে। ৭০ শতাংশ জাহাজে আগুন ধরে যাওয়ার পর পৌঁছয় উদ্ধারকারী দল। নৌবাহিনীর তরফ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জাহাজের চার ক্রু মেম্বারকে হেলিকপ্টারে তুলে নেওয়া হয়। এরপরই ফের বিস্ফোরণ হয়ে আরও জ্বলতে শুরু করে জাহাজটি। এটিকে মাঝ সমুদ্রের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে।

উদ্ধারকাজের জন্য বিশাখাপত্তনম থেকে নিয়ে আসা হয় একটি Sea King 42C হেলিকপ্টার ও একটি ডরনিয়র এয়ারক্রাফট। সঙ্গে নিয়ে আসা হয় ডুবুরি, মার্কোস কমান্ডো ও সি-ম্যানশিপ স্পেশালিস্টদের। কলাইকুন্ডায় বায়ুসেনা এয়ারবেসে নিয়ে আসা হয়েছে এগুলিকে।

Advertisement
---