শীতের কাঁপুনিতে ওজন কমে

শীতের কাঁপুনি ওজন ঝড়ায়৷ কথা টি আষাঢ়ে গপ্পের মতো শোনালো তো? কিন্তু এটা গল্পো হলেও সত্যি৷ সাম্প্রতিক এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমনই এক তথ্য৷

মাস্টরিচ বিশ্ববিদ্যালের গবেষক মার্কেন লিচেনবেল্ট ও তার সহকর্মীরা প্রায় ১০ বছর আগে থেকেই মানব দেহে ঠান্ডার কি প্রভাব পড়ে তা নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছিলেন৷ তারা দেখেন বাইরের থেকে ঘরের ভেতরের তাপমাত্রা পরিবর্তনশীল, এবং এই তাপমাত্রা শরীরের জন্য উপযোগী৷ যদিও দীর্ঘমেয়াদি ফলাফলের তারা এখনও অপেক্ষা করছেন৷

এই গবেষণার প্রথম গবেষক জানালেন, তারা প্রথমে ভেবেছিলেন যে পরিবেশের তাপ মানব স্বাস্থ্যের উপর কি প্রভাব ফেলে তা পরীক্ষা করার৷ তার পর তারা দেখেন অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা তাপমাত্রা শরীরের শক্তি বা ক্যালোরির উপর এক গভীর প্রভাব বিস্তারে সক্ষম৷

- Advertisement -

নেদারল্যান্ডের এই টিম আরও দেখেন যে মানুষেরা সাধারমত ঠান্ডা পরিবেশেই থাকতে বেশি অভ্যস্ত৷ তবে যারা প্রতিদিন অন্তত ৬ ঘন্টা ঠান্ডা তাপমাত্রায় থাকেন তারা কিন্তু শরীরে মেদের পরিমাণ বাড়াচ্ছেন৷ কারণ ঠান্ডা আবহাওয়ার সঙ্গে তারা নিজেদের মানিয়েনিয়েছেন ফলে তারা ১৫ ডিগ্রী সেসিয়াস তাপমাত্রাতেও কাঁপেননা৷

তারা জানান, তরুণ ও মধ্যবয়স্ক মানুষেরা শরীরে উৎপাদিত তাপের মাত্র ৩০ বা তার চেয়ে কিছু শতাংশ বেশি পর্যন্ত গ্রাহ্য করতে পারে৷ অনেকটা সে কারণেই শীতকালে মানুষের চেহারা বা ওজনের একটি তারতম্য চোখে পড়ে৷

এই গবেষণাটি সম্প্রতি সেল প্রেসের একটি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে৷

 

Advertisement
---