জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রায় শক্তি প্রদর্শন প্রয়োজন: বিশ্বহিন্দু পরিষদ

শেখর দুবে, কলকাতা: শ্রীকৃষ্ণের জন্ম উপলক্ষ্যে রবিবার রাজ্য জুড়ে শোভাযাত্রার আয়োজন করেছে বিশ্বহিন্দু পরিষদ। সংগঠনের পূর্বাঞ্চলের সম্পাদক শচীন সিংহ Kolkata24x7-কে বলেন, “কলকাতা, শহরতলি এবং রাজ্যের বিভিন্ন ব্লকে এই শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে।” শচীন সিংহের দাবি, এই শোভাযাত্রাগুলিতে ১০০০-এরও বেশি মানুষ যোগ দেবেন।

আরও পড়ুন: পুলিশি অভিযানে বীরভূমবাসীর মোবাইল প্রাপ্তি

কেমন হবে এই শোভাযাত্রা? গতবারের রামনবমীর মতো রাজ্যজুড়ে অস্ত্র হাতে রাস্তায় নামবে গেরুয়া শিবির? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “না, এই শোভাযাত্রায় কোনও রকম অস্ত্র ব্যবহার করব না আমরা। বাংলায় শ্রীকৃষ্ণের একটা ভাবমূর্তি রয়েছে। সেই মতো ধর্মীয় শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। শ্রীকৃষ্ণ সেজে ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা শোভাযাত্রায় উপস্থিত থাকবে।”

আরও পড়ুন: পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দলে উত্তেজনা

গত বছর রামনবমীর মিছিলে অস্ত্র হাতে প্রচুর মানুষকে দেখা গিয়েছিল। বাংলার বুদ্ধিজীবীরা অভিযোগ করেছিলেন, এই ধর্মীয় শোভাযাত্রা আসলে রাজনৈতিক। বিজেপি বিরোধী শিবিরের অভিযোগ ছিল শ্রদ্ধা নয়, শক্তি প্রদর্শনের জন্য এই মিছিল।

আরও পড়ুন: বিরাট বিশ্রামে নেতা রোহিত

এবারেও উঠতে পারে একই রকম অভিযোগ। কিন্তু সে সবের তোয়াক্কা না করে বিশ্বহিন্দু পরিষদের পূর্বাঞ্চলের সম্পাদক সরাসরি বলেন, “এখানে কোনও রাজনীতির ব্যাপার নেই। এটা সব হিন্দুদের একত্রিত করার উৎসব। তবে শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে শক্তি প্রদশর্নের অবশ্যই গুরুত্ব রয়েছে। এতে অ-হিন্দু জেহাদি গোষ্ঠীর কাছে বার্তা পৌঁছানো যায় যে হিন্দুরা একত্রিত হয়ে রাস্তায় নামতে পারে। নিজের ধর্মাচরণও করতে পরে।”

আরও পড়ুন: দেশের প্রথম রূপান্তরকামী ক্যাবি মেঘনা