স্টাফ রিপোর্টার, নন্দকুমার: পূর্ব মেদিনীপুর লোক সাংস্কৃতিক ও যাত্রা উৎসব উদ্বোধনের পর সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পে রূপায়নে লোকশিল্পীদের ভূমিকার কথা তুলে ধরে তাঁদের ভূয়সী প্রশংসা করেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বলেন, ‘‘লোকশিল্পীদের ভাতা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বাংলায় একটি ঐতিহ্য স্থাপন করেছেন।’’

এদিন তিনি বলেন, ‘‘দেশের অন্য কোনও রাজ্যে এই ভাতার ব্যবস্থা নেই। আমাদের চিরাচরিত ঐতিহ্য বাউল, ঝুমুর, যাত্রা এসবকে রক্ষা করতেই এমন উদ্যোগ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। শিল্পীদের এই ভাতা নিয়ে কম রাজনীতিও হয়নি। কিন্তু আমরা থেমে থাকিনি। বর্তমান সরকার ২ লক্ষ ১০ হাজার লোকশিল্পীকে ভাতা দেয়৷ ভাতার পাশাপাশি সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের সফল রূপায়নে যুক্ত করা হচ্ছে লোকশিল্পীদের৷ আর এই শিল্পীদের মাধ্যমে সরকারি প্রকল্পগুলি সফলতা লাভ করেছে৷ এর জন্য আমরা শিল্পীদের কাছে কৃতজ্ঞ৷’’

- Advertisement -

অনুষ্ঠানে শুভেন্দু লোকশিল্পীদের কাছে সমাজের কল্যাণে সম্প্রীতি রক্ষা এবং ধর্মীয় কুসংস্কারের বিরুদ্ধে প্রচারে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘‘স্বামী বিবেকানন্দ সব সময় মানুষের কথা বলে গিয়েছেন৷ তিনি সনাতন হিন্দু ধর্মের প্রচার করেছেন৷ গীতাতেও অন্য ধর্মকে আঘাতের কথা বলে নেই৷’’

লোক-সংস্কৃতি উৎসব উদ্বোধনের পর শুভেন্দু বাসুদেবপুর স্কুলেই উদ্বোধন করেন ৩ দিনের শ্রমিক মেলার৷ এই দুই কর্মসূচির আগে এদিন শুভেন্দু যোগদান করেন নন্দকুমার থানা আয়োজিত শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এবং হলদিয়ার চৈতন্যপুর বিবেকানন্দ মিশন আশ্রমের বিবেকানন্দের জন্মদিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে৷ সেখানে দেশের হৃতসংস্কৃতিকে ফিরিয়ে আনতে বিবেকানন্দের নীতি-আদর্শকে অনুসরণ করার আহ্বান জানান তিনি৷ এদিন সন্ধ্যায় শঙ্করপুরে গঙ্গোৎসবের সূচনাও করেন শুভেন্দু৷

শুক্রবার নন্দকুমারের বাসুদেবপুর মহারাজা নন্দকুমার হাইস্কুল মাঠে প্রদীপ প্রজ্বলনের মাধ্যমে উৎসবের সূচনা করেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলার দুই সাংসদ শিশির অধিকারী, দিব্যেন্দু অধিকারী, জেলাশাসক রশ্মি কমল, জেলাসভাধিপতি মধুরিমা মণ্ডল, সহ সভাধিপতি শেখ সুফিয়ান প্রমুখ৷ তিন দিনব্যাপী এই উৎসব চলবে আগামী ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত৷

- Advertisement -