ইসলামাবাদ: সিগারেট, মিষ্টি কিংবা ফাস্ট ফুড- এসব খেলেই শরীরে বাসা বাঁধে রোগ। আর তার জেরেই স্বাস্থ্যখাতে খরচ বাড়ে সরকারের। তাই এবার সিগারেট সহ ক্ষতিকারক খাবারের উপর বসানো হবে ‘সিন ট্যাক্স’। এমনটাই ঘোষণা করেছে পাকিস্তানের মন্ত্রী আমির মেহমুদ কিয়ানি।

একটি কনফারেন্স বক্তব্য রাখতে গিয়ে পাকিস্তানের ন্যাশনাল হেল্থ সার্ভিস বিভাগের মন্ত্রী কিয়ানি। তিনি জানান, ইমরান খানের সরকার চাইছে প্রত্যেক বছর স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ পাঁচ শতাংশ করে বাড়াতে। এর জন্য নানা উপায় নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এর মধ্যেই একটা হল এই সিন ট্যাক্স। সেই ট্যাক্সের টাকাই যোগ হয়ে যাবে হেল্থ বাজেটে। এই ধরনের ট্যাক্স পাকিস্তানের বাইরে আরও ৪৫টি দেশে নেওয়া হয় বলে পাক সংবাদমাধ্যম ‘ডন’-কে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের ডিরেক্টর জেনারেল ড. আসাদ হাফিজ।

তিনি আরও জানান, ‘সিন ট্যাক্স’ সাধারণত কোনও ক্ষতিকারক জিনিসের জন্য নেওয়া হয়ে থাকে। সেই তালিকায় রয়েছে তামাক, লজেন্স, সফট ড্রিংক, ফাস্ট ফুড, কফি কিংবা মিষ্টি। আমেরিকা প্রত্যেক প্যাকেট সিগারেট পিছু অন্তত ২০০ টাকা সিন ট্যাক্স নেয় বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। ব্রিটেনে এই ট্যাক্স প্রায় ১০০ টাকা প্রতি লিটার মিষ্টি পানীয়তে।

তবে পাকিস্তানে ঠিক কত টাকা ট্যাক্স নেওয়া হবে, তা এখনও জানানো হয়নি। তবে সেটা যে খুব একটা কম নয়, সেটা স্পষ্ট। এর ফলে দাম বাড়বে সিগারেটের। ফলে অল্পবয়সী ছেলেমেয়েরা সহজে কিনতে পারবে না। রিপোর্ট বলছে পাকিস্তানে প্রত্যেকদিন অন্তত ১৫০০ যুবক-যুবতী নতুন সিগারেট খেতে শুরু করে।

পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের একটি রিপোর্ট বলছে, সেদেশে মৃত্যুর সবথেকে বড় কারণ হল এই সিগারেট বা তামাকজাত দ্রব্য। প্রত্যেক বছর এর জন্য ১ লক্ষেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। আগামিদিনে এইভাবে স্মোকিং বাড়তে থাকলে সরকারের স্বাস্থ্যখাতের খরচ বেড়ে যাবে বলেও মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

----
--