সঙ্গীতশিল্পী বন্ধুর কামুক চরিত্র ফাঁস করলেন গায়ক রূপঙ্কর

কলকাতা: কামের নজর বা নেশা উভয়ই সমাজের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক। যার বড় প্রমাণ মিলেছে সাম্প্রতিককালে ঘটে যাওয়া দেশের বিভিন্ন প্রান্তের কিছু ঘটনায়।

যা নিয়ে প্রতিবাদে সামিল হয়েছেন সমাজের বিভিন্ন মহলের মানুষ। সেই তালিকায় রয়েছেন শিল্পীরাও। কিন্তু, শিল্পীদের কামুক নজর যে কতটা খারাপ হতে পারে তা তুলে ধরেছেন সংগীত শিল্পী রূপঙ্কর বাগচি।

জম্মু-কাশ্মীরের কাথুয়া, উত্তর প্রদেশের উন্নাও বা অসমে সাম্প্রতিক অতীতে ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনা ঘিরে উত্তাল হয়েছে সমগ্র দেশ। উন্নাও ছাড়া বাকি দুই জায়গায় খুন করে ফেলা হয়েছে নির্যাতিতাদের। আরও চাঞ্চল্যকর বিষয় হচ্ছে এই দু’জনের নাবালিকা।

- Advertisement -

নাবালিকাকে দেখেও পুরুষের কাম জাগে? এই প্রশ্নটাই এখন ঘুরছে কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী পর্যন্ত। এই অবস্থায় নিজের জীবনের এক মারাত্মক অভিজ্ঞতার কথা ফেসবুকের ওয়ালে লিখেছেন গায়ক রূপঙ্কর বাগচি। যেখানে তাঁর এক গায়ক এবং গীতিকার বন্ধুর কথা বর্ণনা করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, তাঁর সেই কামুক শিল্পী বন্ধুর সঙ্গে অল্প সময়ের বার্তালাপ তুলে ধরেছেন ফেসবুকে।

শুক্রবার বিকেলের দিকে রূপঙ্কর বাগচি নিজের ফেসবুকের ওয়ালে লিখেছেন, “এক পপুলার… ভিষণ পপুলার গায়ক.. যিনি আবার একজন সং রাইটার..ও.. একটি অনুষ্ঠানে একটি বাচ্চা মেয়ের গান আমি খুব মন দিয়ে শুনছিলাম বলে আমায় বলেছিলেন… ‘মেয়ের পা টা দেখেছিস… কী নিটোল… চিড়ে খেতে ইচ্ছে করছে… বল…’ আমি বলেছিলাম।। ‘কী বলছ’।। মেয়ে টা কী গায়ছে দেখছো না!’ উনি বলেছিলেন.. ‘ওসব *লের কথা রাখ তো’.. আমি জানি আমি যা দেখছি.. তুইও তাই দেখছিস।”

গায়ক রূপঙ্কর বাগচির সেই ফেসবুক পোস্ট

পেশার জগতের নিজের বন্ধুকে সেই মুহূর্তে আর কিছুই বলতে পারেননি গায়ক রূপঙ্কর। সেই কারণে এই মুহূর্তে সমগ্র দেশ উত্তাল হলেও আর মুখ খুলতে চাইছেন তা তিনি। কারণ কিছু বলার মতো মুখ তাঁর আর নেই। ফেসবুকে এমনই লিখেছেন ‘প্রিয়তমা’ গানের শ্রষ্ঠা। তবে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি তিনি অত্যন্ত উদ্বিগ্ন এক কন্যার জনক রূপঙ্কর বাগচি। ফেসবুক পোস্টের শেষ লাইনে তিনি লিখেছেন, “আমার মেয়েটাকেই বরঞ্চ সামলাই।”

সেই শিল্পী বন্ধুর পরিচয় প্রকাশ করেননি গায়ক রূপঙ্কর বাগচি। তবে তাঁর ফেসবুক পোস্টের একটি কমেন্টে তিনি লিখেছেন যে যাকে নিয়ে এই পোস্ট করা হচ্ছে তাঁর নাম করা বৃথা। কারণ তিনি এই ইহজগতে নেই।

সেই কমেন্ট
Advertisement
----
-----