কুলদীপ বেঁচে আছে কিনা জানা নেই! তবু পাক জেলে রাখি পাঠান বোন

আমেদাবাদ: প্রত্যেক বছর রাখি আসে। চোখের জলে এক বোন খামে মুড়ে রাখি পাঠায় তার ভাইকে। ভাই বেঁচে আছে কিনা জানা নেই, সেই রাখি কোনোদিনও সে পরে কিনা কে জানে! তবু এভাবেই রাখি আসে রাখি যায়। আর বিনিদ্র রাত কাটান আমেদাবাদের রেখা যাদব।

রেখার ভাই কুলদীপকে বন্দি করা হয়েছে পাকিস্তানের জেলে। চরবৃত্তির অভিযোগ তুলে তাকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। ১৯৯৭-তে সেই খবর জানতে পারে কুলদীপের পরিবার। তারপর থেকেই নিয়ম করে রাখি পাঠান কুলদীপের বোন রেখা। পাকিস্তানের জেলের ঠিকানায় পাঠানো হয় সেই রাখি। একরাশ আশা বুকে বেঁধে রাখি পাঠান রেখা। এভাবেই কেটে গিয়েছে ২১টা বছর। উত্তর আসেনি কোনোদিন। তাই দিনে দিনে বাড়ে শুধুই ভয় আর আশঙ্কা।

আমেদাবাদের চন্দখেদায় থাকেন রেখা। ২০১১-তে শেষবার চিঠি এসেছিল জেল থেকে। তারপর আর কোনও উত্তর আসেনি। প্রত্যেকবার এই দিনটাতে রাখির চোখ জলে ভরে যায়, ”ভাই কি আদৌ তাঁর পাঠানো রাখি হাতে বাঁধে? ভাই কী জানতে পারে কীভাবে দিনের পর দিন তাঁর জন্য প্রার্থনা করেন রেখা।

- Advertisement -

হিসেব মত কুলদীপের জেলের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২০২১-এর ১০ সেপ্টেম্বর। কেন্দ্রীয় সরকারও সেকথা জানিয়েছে। এতদিন অপেক্ষা করেছে, আর কয়েকটা দিন হয়ত অপেক্ষা করে নেবে পরিবার। তবে কুলদীপ কি ঘরে ফিরবে? সেই উত্তর নেই কারও কাছে। ওই জেলেই ছিলেন সরবজিৎ। তাঁর ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই আশঙ্কা বেড়েছে আরও।

এলএলবি পাশ করার পর কর্মসূত্রে দিল্লি গিয়েছিএলন কুলদীপ। এরপরই ১৯৯৪ তে তিনি নিখোঁজ হয়ে যান। এমন কোনও সরকারি অফিস নেই, যেখানে যায়নি কুলদীপের পরিবার।

Advertisement ---
---
-----