দুই কোরিয়ার মধ্যে ব্যাপক গোলা বিনিময়

সিওল: দুই কোরিয়ার মধ্যে যুদ্ধ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে৷ সোমবার উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমায় দুই দেশের নৌসেনার মধ্যে শতাধিক রাউন্ড কামানের গোলা বিনিময় হয়েছে বলে সংবাদ সূত্রে খবর৷ এই গোলা বিনিময়ের জেরে দক্ষিণ কোরিয়ার সীমান্তবর্তী দ্বীপগুলির বাসিন্দারা নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যেতে বাধ্য হয়েছে৷ প্রসঙ্গত, উত্তর কোরিয়া চতুর্থবার পরমানু অস্ত্রের পরীক্ষা চালাতে চেয়েছিল৷ সেই হুমকির ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই দুই দেশের মধ্যে মুড়ি-মুরকির মতো গুলি-বিনিময়ের ঘটনা ঘটল৷
সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন ওই সীমান্তবর্তী এলাকায় উত্তর কোরিয়ার নৌসেনা যুদ্ধ-মহড়া দিচ্ছিল৷ ঠিক সেই সময় দুই দেশের মধ্যে গোলা বিনিময় শুরু হয়৷ উত্তর কোরিয়া সেনাবাহিনীর তিন ঘণ্টাব্যাপী এই মহড়া চলাকালীন কিছু গোলা দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমায় গিয়ে পড়ে৷ তার হামলা হয়েছে শঙ্কা করে পালটা জবাব দেয় উত্তর কোরিয়া৷ আর তার জেরেই দুই দেশের মধ্যে রীতিমতো যুদ্ধ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়৷ তবে, গোলা-গুলি বিনিময়ে কোনও পক্ষের কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর এখনও পাওয়া যায়নি৷
এ প্রসঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়া প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছে, মহড়া চলাকালীন উত্তর কোরিয়ার নৌবাহিনী পাঁচ শতাধিক কামানের গোলা নিক্ষেপ করেছে৷ তারমধ্যে শতাধিক গোলা দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমায় পড়েছে৷ মন্ত্রকের মুখপাত্র কিম মিন-সিওক সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, ‘পূর্ব পরিকল্পিতভাবে উসকানি’র জবাবে দক্ষিণ কোরিয়া সীমান্ত লাইন দ্বীপগুলিতে থাকা উৎক্ষেপণ ব্যাটারির সাহায্যে ৩০০ গোলা নিক্ষেপ করেছে৷
সিউলের নর্থ কোরিয়া স্টাডিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ইয়ং মু-জিন সংবাদ সংস্থারল কাছে বলেছেন, উত্তর কোরিয়া তার পরমাণু কর্মসূচি সম্পর্কে আলোচনা শুরু করতে চায়। কিন্তু, দক্ষিণ কোরিয়া ও আমেরিকা এই ব্যাপারে আগ্রহ দেখাচ্ছে না৷ এই কারণে উষ্কানিমূলক পদক্ষেপ নিচ্ছে পিয়ংইয়ং৷’
————————————————————————————————————————

Advertisement
---