ফর্সা হওয়ার ক্রিমে মিশছে স্টেরয়েড, বাড়ছে চর্মরোগের প্রবণতাও

গান্ধীনগর:  ফর্সা হওয়ার ক্রিম কিংবা লোশনে অতিরিক্ত পর্যায়ে মেশানো হচ্ছে স্টেরয়েড। আর তা সম্পূর্ণ অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে ব্যবহার করা হচ্ছে। যার ফলে ত্বক উজ্জল করতে চর্মরোগের শিকার হচ্ছেন বহু মহিলাই। সম্প্রতি, ভারতীয় চিকিৎসকদের কাছে এমন অসংখ্য রোগী এসেছেন, স্টেরয়েডযুক্ত ক্রিম ব্যবহারের ফলে যাঁদের নানাবিধ সমস্যার মুখে পড়তে হচ্ছে। এক গবেষণা পত্রে এমনই দাবি করেছেন গুজরাতের এক চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ।
কর্টিকো-স্টেরয়েড, যা স্টেরয়েড নামেও পরিচিত, সাধারণতভাবে ত্বক ফুলে যাওয়ার উপশমে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। কিন্তু, দীর্ঘদিন ধরে এই স্টেরয়েড ব্যবহার করলে মুখ ও কুঁচকিতে অপূরণীয় ক্ষতি হতে পারে। এমনটাই আশঙ্কার কথা শুনিয়েছেন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ শ্যাম বি বর্মা। তিনি আরও জানান, এর ব্যবহারের ফলে ত্বকের স্বাভাবিক রঙ নষ্ট হতে পারে। এছাড়া, ত্বকের রক্তনালীগুলির ক্ষতি হতে পারে। ব্যাক্টেরিয়াল ও ফাঙ্গাল সংক্রমণও হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।
সম্প্রতি এই বিষয়ে একটি গবেষণাপত্র পেশ করেছেন বর্মা। সেখানে বলা হয়েছে, প্রায় ৩ হাজার চর্মরোগীদের পরীক্ষা করার সময় দেখা গিয়েছে যে, চারশোর মতো রোগী বিভিন্ন ধরনের স্টেরয়েড মিশ্রিত ক্রিম ব্যবহার করতেন। তিনি জানান, স্টেরয়েড কিনতে গেলে চিকিৎসকদের প্রেসক্রিপশন আবশ্যিক। কিন্তু, টপিক্যাল (সরাসরি শরীরের ওপর ব্যবহার করা যায়) স্টেরয়েড কেনার জন্য কোনও প্রেসক্রিপশনের প্রয়োজন হয় না।

Advertisement
----
-----