‘ইসলামিক রাষ্ট্রগুলি মুসলিমদের জন্যেও নিরাপদ নয়’

নয়াদিল্লি: মুসলিম প্রধান দেশগুলি নিরাপদ নয় নাস্তিকদের জন্য। শুধু তাই নয়, মুসলিমদের জন্যেও সেগুলি নিরাপদ নয়। এমনই মনে করেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

আরও পড়ুন- রোহিঙ্গারা হিন্দু কিংবা বৌদ্ধ হলে আশ্রয় দিতেন? প্রশ্ন তসলিমার

তসলিম নাসরিন এবং বিতর্ক পরস্পর পরস্পরের পরিপূরক। এই প্রবাদটি কার অজানা নয়। ধর্ম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য এবং লেখার জন্য দেশ ছাড়া হতে হয়েছে তাঁকে। এখনও তাঁর নিজের দেশ বাংলাদেশে প্রবেশের অনুমতি নেই তাঁর।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- তিন তালাক থেকে লাভ জিহাদে কঠোর আইনের দাবি প্রগতিশীল মুসলিম সমাজের

হাজারও বিতর্ক এবং হুমকির পরেও বাংলাদেশের বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে দমানো যায়নি। বারবার তিনি সরব হয়েছেন নানাবিধ মৌলবাদের বিরুদ্ধে। কেবলমাত্র ইসলামিক মৌলবাদ নয়, উগ্র হিন্দুত্ববাদের বিরুদ্ধেও বিভিন্ন সময়ে মুখ খুলেছেন তসলিমা। কখনও আবার হাতে তুলে নিয়েছেন কলম।

আরও পড়ুন- ‘হত্যাকাণ্ড কোনও উৎসব নয়’, কোরবানি বিতর্কে তসলিমা

বিভিন্ন সময়ে অনেক সামাজিক সমস্যা নিয়ে লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে সরব হতে দেখা গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। ফেসবুক বা ট্যুইটারে উগরে দিয়েছেন নিজের ক্ষোভ। সেই একই কাজ করেছেন শুক্রবার সকালে। এদিন তিনি ট্যুইটারে লেখেন, “এখনও পর্যন্ত মুসলিম এবং নাস্তিকদের জন্য সবথেকে নিরাপদ স্থান হচ্ছে অমুসলিম দেশগুলি।” যার অর্থ মুসলিমদের জন্যেও নিরাপদ নয় ইসলামিক রাষ্ট্রগুলি।

আরও পড়ুন- ফের দেশভাগের আশংকায় আতঙ্কিত তসলিমা

গত কয়েক বছরে নানাবিধ হিংসার সাক্ষী থেকেছে বাংলাদেশ। নাস্তিক ব্লগার হত্যা থেকে শুরু করে অমুসলিম মহল্লায় আগুন। এই ধরণের বহু ঘটনা ঘটেছে তসলিমা নাসরিনের নিজের দেশে। তবে সব ক্ষেত্রেই আক্রমণের লক্ষ্য ছিল অমুসলিম ব্যক্তিরা। এই নিয়ে অনেক সময় কলম ধরেছিলেন দুঃসহবাসের শ্রষ্ঠা। তাই বলে, মুসলিমদের জন্যেও ইসলাম প্রধান দেশগুলি নিরাপদ নয়, এমন মন্তব্য শোনা যায়নি। এই প্রথম সরাসরি মুসলিম সংখ্যাগুরু রাষ্ট্রগুলিকেই কাঠগড়ায় তুললেন তসলিমা নাসরিন।

Advertisement
-----