‘ডিএ’ রায় নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত সোশ্যাল মিডিয়া

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বকেয়া ডিএ নিয়ে রাজ্য সরকার এবং সরকারী কর্মচারীদের মধ্যে সংঘাত হাইকোর্ট অবধি গড়িয়েছিল। শুক্রবার এই মামলার রায় দিতে গিয়ে হাইকোর্ট পরিষ্কার জানিয়ে দেয় “ডিএ” রাজ্য সরকারি কর্মীদের ন্যায্য আইনি অধিকার। রাজ্য সরকার তা দিতে বাধ্য। তবে এ ব্যাপারে রাজ্য সরকারকে কোনরকম নির্দেশ না দিয়ে মামলাটিকে আবার স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনালে ফেরৎ পাঠিয়েছে। এদিকে আদালতের রায়ের পরেই কার্যত দু-ভাগে বিভক্ত সোশ্যাল মিডিয়া।

এক শ্রেণীর সরকারী কর্মচারীরা আশার আলো দেখছেন হাইকোর্টের এই রায়ে। জনৈক এক স্কুল শিক্ষক ফেসবুকে লেখেন, “হাইকোর্টের রায়ে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখতে পাচ্ছি। আশা করি এবার ডিএ নিয়ে কিছু একটা সদর্থক পদক্ষেপ নেবে রাজ্য সরকার।”

তবে হাইকোর্টের এই রায়ে হতাশ হওয়া সরকারী কর্মচারীদের সংখ্যাটাও কম নয়। হাইকোর্ট স্যাট-কে আগামী দুমাসের মধ্যে ডিএ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের নেওয়ার কথা বলেছে। আর প্রশ্ন উঠছে এখানেই। ডিএ মামলা প্রথমে স্যাট-এর কাছে গিয়েছিল। স্যাটের রায়ে সন্তুষ্ট না হয়েই সরকারী কর্মীরা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। টানা ১৭ মাস ধরে মামলা চলার পর শুক্রবার রায় দিয়েছে হাইকোর্ট। এক্ষেত্রে মামলাটিকে আবার স্যাটের কাছে পাঠানো মানেই আরও সময় নষ্ট হবে বলে অনেকে মনে করছেন।

- Advertisement -

ফেসবুকে মুক্তা নার্জিনারী নামে একজন ডিএ নিয়ে একটি পোস্টের কমেন্টে লেখেন, “তারপর কী? দুমাস আরও অপেক্ষার পর কী হবে?” ওই পোস্টেরই কমেন্টে বীথিকা আচার্য লেখেন, “কাজের কাজ কিছুই হবে না শুধু এ টেবিল থেকে ও টেবিলে ফাইলটা গেল!”

শুভদীপ ঘোষ ফেসবুকে একটি কমেন্টে লেখেন, “শত কোটি প্রণাম বিকাশ বাবুকে, উনি যে কেস হাতে নেন জিতে আসেন। শত কোটি প্রণাম সিপিএমকে যারা রোপা চালু করেছিল। রোপার কারণেই আজ রাজ্য সরকারের কর্মীরা কেসটা জিততে পারল। নাহলে তো বর্তমান রাজ্য সরকার, কর্মীদের হাতে হ্যারিকেন ধরিয়ে দিয়েছিল।”

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের (সেডা) সাধারণ সম্পাদক রামকৃষ্ণ দাস বলেন, ‘‘ডিএ কর্মচারীদের আইনি অধিকার৷ এই রায়ে সকল স্তরের কর্মচারীরা খুশী হবেন৷ তবে যে রায় নিয়ে এত আলোচনা দীর্ঘ বাম আমলের সরকার বের করতে পারতেন। কিন্তু তা হয়নি। যাই হোক আমাদের আশা মানবতার মুখ বা কর্মচারী দরদী বর্তমান সরকারের মাননীয়া মুখ‍্যমন্ত্রী নিশ্চয় হস্তক্ষেপ করবেন ও কর্মচারীদের সুবিধার্থে সঠিক আদেশনামা প্রকাশ করবেন ও বকেয়া প্রাপ‍্য মিটিয়ে দেওয়ার ব‍্যবস্থা করবেন।’’

Advertisement ---
---
-----