গুরুতর অসুস্থ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়, ভর্তি হাসপাতালে

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: লোকসভার প্রাক্তন অধ্যক্ষ এবং সিপিআইএম-এর প্রাক্তন সাংসদ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় গুরুতর অসুস্থ৷

জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে একটি হাসপাতালে তাকে লাইফ সাপোর্ট দিয়ে রাখা হয়েছে৷ ৮৯ বছরের এই বাম নেতা শ্বাসকষ্টজনিত কারণে অনেকদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন৷ সঙ্গে রয়েছে হৃদরোগের সমস্যা৷ দক্ষিণ কলকাতায় তার বাড়িতে চিকিৎসা চলছিল এতোদিন৷

হাসপাতাল সূত্রে খবর জুন মাসেও তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করতে হয়েছিল৷ দীর্ঘদিন হাসপাতালে ভরতি থাকার পর আগষ্ট মাসের শুরুতে ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে৷ তবে বাড়িতেও ছিলেন চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে। কিন্তু ফের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় হাসপাতালে ভরতি করতে হয় তাঁকে৷ দক্ষিণ কলকাতার একটি নার্সিংহোমে তাঁর চিকিৎসা চলছে। পরিস্থিতি গুরুতর হওয়ায় আপাতত আইসিইউতে রাখা হয়েছে তাঁকে।

- Advertisement -

পড়ুন: সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়কে রাষ্ট্রপতি হতে দেননি কারাত

হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ধীরে ধীরে চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন সিপিএমের প্রাক্তন এই সাংসদ৷ গত এক সপ্তাহ ধরে হাসপাতালে ভরতি তিনি৷ তবে শুক্রবার বিকেল থেকে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় তাঁর৷ গোটা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করতে গঠন করা হয় মেডিক্যাল বোর্ড৷ হাসপাতালে উপস্থিত রয়েছনে তাঁর পরিবারের সদস্যরা৷

২০০৪ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত লোকসভার অধ্যক্ষ ছিলেন সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়৷ ১৯৬৮ সালে সিপিএমে যোগ দেন এই প্রাক্তন সাংসদ৷ ২০০৮ সালে পরমাণু চুক্তির জন্য কেন্দ্রের সরকারের ওপর থেকে সংমর্থন তুলে নেয় বামেরা৷ সে সময় তাঁর দল সিপিএম একাধিক বার সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়কে পদ ছাড়তে বলে। কিন্তু দলের কথা শুনতে রাজী হননি লোকসভার এই প্রাক্তন অধ্যক্ষ৷ আর তাই তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেন তৎকালীন সিপিএম সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ কারাত।

তিনি সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন দীর্ঘদিন৷ ১৯৮৯ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত লোকসভায় দলের নেতা ছিলেন৷ প্রথম ইউপিএ সরকার তৈরি হওয়ার সময় বামেরা কংগ্রেসকে বাইরে থেকে সমর্থন দেয়। তখনই অধ্যক্ষ হিসেবে উঠে আসে দীর্ঘদিনের সাংসদ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের নাম।

Advertisement
---