ইমরানকে অভিনন্দন সৌরভের

কলকাতা: এখনও সরকারিভাবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদে বসেননি ইমরান৷ তবে পাক মসনদে কাপ্তান খানের অভিষেক নিশ্চিত৷ বিশ্বজয়ী অধিনায়ক থেকে পাক রাজনীতির প্রধান মুখ হয়ে ওঠার সন্ধিক্ষণে ইমরান খানকে অভিনন্দন জানালেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়৷

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে জয়লাভ করা ইমরানকে প্রধানমন্ত্রী হিসাবেও সাফল্যের শুভকামনা জানান বাংলার ‘মহারাজ’৷ সিএবি’র বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের প্রাক্কালে সৌরভ বলেন, ‘ইমরান বরাবরের লড়াকু৷ ক্রিকেটের ময়দানে যেমন চোয়াল চাপা লড়াই চালিয়েছেন, একই ভাবে লড়েছেন রাজনীতির আঙিনাতেও৷’

আরও পড়ুন: টেস্ট সিরিজের রিহার্সালে নিপুন অভিনয় কোহলিদের

- Advertisement -

সাধারণ নির্বাচন জিতে ২২তম পাক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে চলেছেন ইমরান আহমেদ খান নিয়াজি৷ ১৯৯২ বিশ্বকাপ জয়ী ক্রিকেট অধিনায়কের হাতেই এবার পাকিস্তানের শাসনভার! সাধারণ নির্বাচনে পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ একক সংখ্যাগরিষ্ঠ না-পেলেও পাকিস্তানের ভাবি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইমরানকে দেখছে রাজনৈতিকমহল৷

২৫ মার্চ, ১৯৯২ মেলবোর্নে বিশ্বকাপে হাতে নিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেটকে নতুন স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন ইমরান৷ আর ২৬ জুলাই, ২০১৮ সাধারণ নির্বাচন জিতে দেশকে নতুন স্বপ্ন দেখাতে চলেছেন ৬৬ বছরের পাক ‘তরুণ’৷ ব্যাট ও বল হাতে হাজারও নারীর মন কেড়েছেন৷ এবার কঠোর হাতে দেশবাসীর মন জয় করার সংকল্প ইমরানের গলায়৷

২১ বছর পর রাজনীতির ময়দানে দুঁদে হয়ে উঠে অন্যদের মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দেন ইমরান৷ তাঁর বাউন্সারে ভোটের ময়দানে এবার পিপিপি, পিএমএল এবং পিএমএল-এন দলকে নক-আউট করে দেয় ইমরানের পিটিআই(পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ)৷ সংখ্যাগরিষ্ঠর জন্য ১৩৭টি আসনে জিততে হবে৷ সেখানে ১১৯টি আসনে এগিয়ে রয়েছেন ইমরান৷ পাক সংবাদপত্র ও টেলিভিশনগুলি ইতিমধ্যেই ইমরানকে দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখছে৷

দু’দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির জন্য দীর্ঘ ৬ বছর কোনও দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলেনি ভারত-পাকিস্তান৷ শেষবার ভারত-পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হয়েছে ২০১২৷

এর দু’বছর পর অর্থাৎ ২০১৪ বিসিসিআই ও পিসিবি-র মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ নিয়ে একটি মউ স্বাক্ষরিত হয়৷ কিন্তু দু’ দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতার জন্য মউ স্বাক্ষরিত হওয়া সত্ত্বেও দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হয়নি৷ এর জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই-এর কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করে আইসিসি-র দ্বারস্থ হয়৷ কিন্তু তাতে কাজের কাজ হয়নি৷

সীমান্ত গুলির লড়াই বন্ধ না-হলে ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক সিরিজ শুরু করা সম্ভব নয় বল পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে ভারত সরকার৷ তবে পাক প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে ইমরান খান বসলে এবার বরফ গলবে কিনা, তা সময়ই বলবে৷

Advertisement
-----