সৌরভের বিজেপিতে যোগদান নিয়ে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া

দেবময় ঘোষ, কলকাতা: সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় নাকি বিজেপিতে যোগদান করছেন৷ সোমবার ‘দাদা’কে এই জল্পনা চলল দিনভর৷ বর্তমানে ক্রিকেট অ্যাসেসিয়েশ্যন অব বেঙ্গলের (সিএবি) সভাপতি সৌরভ ব্যস্ত রয়েছেন ক্রিকেট নিয়েই৷ মাঝে মাঝে ধারাভাষ্যে বা ‘দাদাগিরি’তে দাদার পুরানো ঝলক দেখা গেলেও রাজনীতির দিকে তাঁকে কখোনই ঝুঁকতে দেখা যায়নি৷ কিন্তু দাদাকে সক্রিয় রাজনীতিতে পাওয়ার আগ্রহ অনেকবারই দেখিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলি৷ অফ স্ট্যাম্পের বাইরের সেই ‘বল’ কিছুটা সতর্কভাবেই ছেড়ে দিয়েছেন দাদা৷

সোমবার জল্পনার শুরু বিজেপির মহিলা মোর্চা সভাপতি লকেট চট্টোপাধ্যায়ের অনুরাগীদের তৈরি করা ফেসবুক পেজ ‘লকেট চ্যাটার্জি সাপোর্টারস’ – একটি পোস্ট থেকে৷ সৌরভের ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি পদ্ম-প্রতীক সহ একটি গ্রাফিকাল পোস্ট নেট দুনিয়া ভাইরাল হয়৷ লাখো সৌরভ ভক্তরা সোস্যাল নেটওয়ার্কে নিজেদের বিষয়টি নিয়ে আলাপ আলোচনা শুরু করেন৷ শুরু হয় বিতর্কও৷

এদিকে লকেট চট্টোপাধ্যায় মহিলা মোর্চার গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে ব্যস্ত ছিলেন রাজ্য বিজেপির সদর দপ্তরে৷ বিষয়টি সম্পর্কে বিন্দুমাত্র জানতেন না তিনি৷ সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, ‘‘আমি কিছুই জানি না৷ ওটা আমার অ্যাকাউন্ট বা পেজ নয়৷ আমার একটাই পেজ রয়েছে৷ কিন্তু ওটা আমার পেজ নয়৷ ফেক অ্যাকাউন্ট৷’’

- Advertisement -

তবে একথা মিথ্যা নয় যে, সৌরভকে দলে পেতে এর আগে অনেকভাবে চেষ্টা করেছে বিজেপি৷ ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে বাংলা থেকে সৌরভকে ভোটে লড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টাও হয়েছিল৷ শাসক তৃণমূল কিংবা বিজেপি, চেষ্টার ত্রুটি রাখেনি কোন পক্ষই৷ তবে সব পক্ষকে হতাস করেছেন তিনি৷ রাজনীতিতে যোগদান কিংবা ভোটে দাঁড়ানোর মতো প্রস্তাবগুলি তিনি অফ-স্ট্যাম্পের বাইরে বিষাক্ত আউট সুইংগারের মতোই ছেড়ে দিয়েছেন৷

কিন্তু রাজনীতি থেকে দূরে থাকলেও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের থেকে দূরে থাকেননি বাংলার ‘মহারাজ’৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কিংবা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে তাঁকে দেখাও গিয়েছে অনুষ্ঠান বিশেষে৷ বাম আমলে প্রাক্তণ নগরান্নয়ন মন্ত্রী অশোক ভট্টাচার্যের সঙ্গেও তাঁকে একাধিকবার দেখা গিয়েছে৷ কিন্তু রাজনীতির ম্যাচে কখোনই ওপেন করেননি তিনি৷

সিএবি সভাপতির দায়িত্ব অবশ্য কোনও অংশে কম নেই৷ সদ্য সমাপ্ত আই পি এলের গভরনিং কাউন্সিলেন সদস্য সৌরভ বি সি সি আই – এর অন্যতম পরামর্শদাতাও৷ তার সঙ্গে রয়েছেন সচিন তেন্ডুলকর এবং ভি ভি এস লক্ষ্ণণ৷ রাজনীতি তাই দাদার কাছে শত যোজন দূরে৷

Advertisement ---
-----