স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : প্রাক্তন প্রেমিকার সঙ্গে সেলফি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুললেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়৷ তাঁর এক্স বলতে গেলে স্বস্তিকা ছাড়া আর কারও নাম অনেকের মাথাতেই আসে না! দু’জনে পাশাপাশি দাঁড়িয়ে খোশ মেজাজে সেলফি তুলেছেন৷ সেই ছবি ট্যুইটার পোস্ট করেছেন সৃজিত৷ আর সেই ছবি নিয়েই চলছে নানা জল্পনা৷

তবে সৃজিত এবং স্বস্তিকা একেবারে বিন্দাস৷ এসব গসিপের ধার ধারেন না কেউই৷ ‘শাহজাহান রেজেন্সি’র গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন স্বস্তিকা৷ ছবির প্রস্তুতিও ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে৷ সেই প্রস্তুতির মাঝেই সেলফিটি তুলেছেন তাঁরা৷ ক্যাপশনে লিখেছেন, “জন্মের আগেও জন্ম, পরেও জন্ম, তুমি এমন৷” এমনই গোলক ধাঁধার ক্যাপশনে বাঁধা ছবি এখন টলিদুনিয়া এবং সোশ্যাল সাইটের হটকেক৷

কেবল স্বস্তিকার সঙ্গে সেলফি নয়, অন্যান্য বহু আপডেটই পাওয়া যাচ্ছে সৃজিতের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে৷ সম্প্রতি পোস্ট করেছিলেন অনুপম রায়ের একটি ছবি৷ যেখানে বৃষ্টির ওয়েদারে গান বাঁধছেন অনুপম৷ ‘শাহজাহান রেজেন্সি’র প্রথম গানের প্রস্তুতি পর্বের ছবি আপলোড করেছিলেন পরিচালক৷

শংকরের ‘চৌরঙ্গী’ নিয়ে ময়দানে নেমেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, যিশু সেনগুপ্ত, আবির চট্টোপাধ্যায়, মমতা শংকর ও জয়া এহসান। এমনই খবরে ছয়লাপ ছিল টলিপাড়া। কিন্তু মহরতের ছবি সামনে আসতেই পাল্টে গেল চালচিত্র। সিনেমার নাম থেকে শুরু করে নায়ক-নায়িকা বদলে গিয়েছে সব!

কথা ছিল সাটা বসুর চরিত্রটি করবেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু শোনা যাচ্ছে, বুম্বাদার বয়সের সঙ্গে সাটা বসুর চরিত্রটা মানাবে না! তাই সরে গিয়েছেন তিনি। এদিকে অসুস্থ যিশু। তাই অনিন্দ্য পাকড়াশির চরিত্রটা এসেছে পরমব্রতের ঝুলিতে। এদিকে তালিকায় নেই জয়া আহসান। করবীর চরিত্রটা করবে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এমনকি ‘চৌরঙ্গী’ নাম বদলে রাখা হয়েছে ‘শাহজাহন রেজেন্সি’।

টলিপাড়ার খবর, একের পর এক নায়ক-নায়িকাদের সরে যাওয়া ‘চৌরঙ্গী’ প্রোজেক্ট পিছিয়ে দেবেন বলে ভেবেছিলেন পরিচালক। কিন্তু স্বপ্নের হাতছানিতে সমম্যা কাটিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়লেন ময়দানে। বেশ কয়েকদিন আগেই হয়ে গিয়েছে ‘শাহজাহন রেজেন্সি’ শুভ মহরত। হাজির ছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, পরমব্রত চ্যাটার্জি, আবির চ্যাটার্জি, রুদ্রনীল ঘোষ, অঞ্জন দত্ত, অনির্বাণ ভট্টাচার্য, সুজয় প্রাসাদ চ্যাটার্জি ও কাঞ্চন মল্লিক সহ ছবির অন্য কুশীলবরা।

একসময় যে ছবিতে উত্তম কুমার, শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়, বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়, অঞ্জনা ভৌমিক, উৎপল দত্তের মতো কাল্ট অভিনেতা-অভিনেত্রীরা অভিনয় করেছেন, সেখানে নতুন করে তা দর্শকদের সামনে তা তুলে ধরার কঠিন কাজটি হাতে নিয়েছেন পরিচালক। আর এই কাজে গল্পের স্রষ্টা পুরো ভরসা রাখছেন সৃজিতের ওপর। শংকরের কথায়, “চৌরঙ্গীর সঙ্গে কোনও ভুল করবেন না সৃজিত।” অন্যদিকে পরিচালক জানিয়েছেন, “নতুন এই ছবি শংকরের উপন্যাস থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তৈরি হবে ঠিকই। তবে এর সঙ্গে ৬৮-র সিনেমার কোনও মিল থাকবে না।”

পাঁচের দশকের কলকাতাকে ‘ চৌরঙ্গী’র দু’মলাটের পাতায় পাতায় জীবন করে তুলেছিলেন শংকর। যে কাহিনি ৬৮ সালে ক্যামেরায় বন্দি করেছিলেন পরিচালক পিনাকী ভূষণ মুখোপাধ্যায়। যেখানে মুখ্য চরিত্র চরিত্র শংকর হিসেবে দেখা গিয়েছিল শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়কে। তবে সাটা বোসের চরিত্রে উত্তমকুমার আজও দর্শকদের মনে রয়ে গিয়েছেন৷ আর করবী গুহর চরিত্রে ছিলেন সুপ্রিয়া দেবী।

শংকর অর্থাৎ সূত্রধরের ভূমিকায় আবীর চট্টোপাধ্যায়। অনিন্দ্য পাকড়াশির চরিত্রে থাকছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। মিসেস পাকড়াশি হচ্ছেন মমতা শংকর। এছাড়া মার্কোর চরিত্রে অঞ্জন দত্ত এবং করবীর চরিত্রে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। এদিকে ছবির সংগীতের দায়িত্বে রয়েছেন অনুপম রায়। আপাতত টিম নিয়ে ফ্লোরে নেমে পড়েছেন সৃজিত। শোনা যাচ্ছে, চলতি বছর ডিসেম্বরে মুক্তি পেতে পারে ছবিটি৷

----
--