হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী কাউন্সেলিং-এর বিজ্ঞপ্তি বাতিল করল এসএসসি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ না করেই ৬ জুলাই কাউন্সেলিং-এর বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল পশ্চিমবঙ্গ স্কুল সার্ভিস কমিশন (এসএসসি)৷ গত সোমবার এই নিয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন মোট ২০ জন চাকুরিপ্রার্থী৷ সেই মামলার শুনানিতে দু’পক্ষের আইনজীবীর বয়ানের ভিত্তিতে ৬ জুলাইয়ের কাউন্সেলিং-এর বিজ্ঞপ্তি বাতিল করার নির্দেশ দেন বিচারপতি শেখর ববি শরাফ৷ হাইকোর্টের নির্দেশ অনুসারে শুক্রবার কাউন্সেলিং-এর বিজ্ঞপ্তি বাতিল করে মেধাতালিকা প্রকাশের দিন ঘোষণা করল এসএসসি৷

শুক্রবার মেধাতালিকার দিন ঘোষণা করে অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে স্কুল সার্ভিস কমিশন৷ এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে শিক্ষক নিয়োগের জন্য ফার্স্ট এসএলএসটি, ২০১৬-র এমপ্যানেলড প্রার্থীদের কাউন্সেলিং-এর জন্য ৬ জুলাই যে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল সেটি বাতিল করা হল৷ কলকাতা হাইকোর্টের ১২ জুলাইয়ের নির্দেশের ভিত্তিতেই এই কাউন্সেলিং বিজ্ঞপ্তি বাতিল করা হল৷

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে শিক্ষক নিয়োগের জন্য ফার্স্ট এসএলএসটি, ২০১৬-র এমপ্যানেলড ও ওয়েটিং-এর মেধাতালিতালিকা আগামী সোমবার অর্থাৎ, ১৬ জুলাই কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে৷ মেধাতালিকা প্রকাশের পর অল্প কিছুদিনের মধ্যেই কাউন্সেলিং-এর দিন ঘোষণা করা হবে ওয়েবসাইটে৷

- Advertisement -

২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে এসএসসি৷ এই বিজ্ঞপ্তিতে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে ৭৩ হাজার পাঁচশো ৬৩ জন শিক্ষক নিয়োগ করার কথা বলা হয়েছিল৷ ওই বছরেরই ২৭ নভেম্বর ও ৪ ডিসেম্বর দু’টি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ চাকুরীপ্রার্থী৷ গত ৬ জুলাই কাউন্সেলিং-এর বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল এসএসসির অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে৷ কিন্তু, চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ না করেই কাউন্সেলিং-এর বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে এসএসসি৷ এই অভিযোগে গত ৯ জুলাই হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন বিশ্বজিৎ পাল, তনুশ্রী দাস, মনসী ওয়ারিস আসগর সহ ২০ জন চাকুরীপ্রার্থী৷

মামলা চলাকালীন, মেধাতালিকা প্রকাশ না করেই কাউন্সেলিং-এর দিন ঘোষণায় দুর্নীতির আশঙ্কার কথা তুলে ধরেন মামলাকারীদের পক্ষের আইনজীবী আশিষ কুমার চৌধুরী৷ তিনি বিচারপতির সামনে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেন, নিয়োগের নিয়ম না মেনেই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে এসএসসি৷ তিনি নিয়োগ সংক্রান্ত নিয়মের ১২ নম্বর ধারার উল্লেখ করেন৷ যে নিয়মে বলা আছে, চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ না করে কোনও প্রকার নিয়োগ করা যাবে না এবং চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা পিডিএফ ফরম্যাটে প্রকাশ করতে হবে৷

দু’পক্ষের আইনজীবীর বক্তব্য শুনে ১২ জুলাই হাইকোর্টের বিচারপতি শেখর ববি শরাফ ৬ জুলাইয়ের কাউন্সেলিং-এর নির্দেশিকা খারিজ করার নির্দেশ দেন৷ তিনি নির্দেশে বলেন, আগে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে হবে৷ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ না করে কাউন্সেলিং করা যাবে না৷ ওই দিনই মামলাটির নিষ্পত্তি করে বিচারপতি জানান, চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের তিনদিনের মধ্যে কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া ফের চালু করতে পারবে এসএসসি৷ হাইকোর্টের ১২ জুলাইয়ের সেই নির্দেশ মেনে চূড়ান্ত (এমপ্যানেলড) প্রার্থী তালিকা প্রকাশের দিন ঘোষণা করল এসএসসি৷

Advertisement ---
---
-----