ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ শুরু, বন্যা দুর্গতদের নিয়ে বাড়ছে চিন্তা

প্রতীকী ছবি

কলকাতা: পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে আগাম ভোটার তালিকা সংশোধন ও নাম তোলার কাজ শুরু করল নির্বাচন কমিশন। রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভোটার তালিকা সংশোধনীর কাজ চলবে। এর মধ্যে ২৭ আগস্ট এবং ১০ সেপ্টেম্বর বিশেষ অভিযান চলবে।

২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি যাদের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হচ্ছে, তারা নাম তুলতে পারবে। এদিন খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশিত হয়। প্রতিটি বুথে তা টাঙানো হবে। মোট ভোটারের সংখ্যা হল ৬,৬৭,২৯,৯১৪। এর মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা হল ৩,৪৪,২৫,২০০। আর মহিলা ভোটারের সংখ্যা হল ৩,২৩,০৩,৭২৬ জন।

আগামী বছর ৫ জানুয়ারি চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশিত হবে। যে কোনও অসুবিধার জন্য টোল ফ্রি নম্বর ১৯৫০ চালু করেছে কমিশন। ভোটার তালিকায় নাম তোলার বিষয়ে আগ্রহ বাড়াতে অঙ্কন প্রতিযোগিতা, টি-২০ ক্রিকেট প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।

- Advertisement -

অন্যদিকে, রাজ্যের একাধিক জেলায় যখন বন্যার সঙ্গে যুঝছেন বিপন্ন এলাকার মানুষ তখন এই খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধনীর কাজ কীভাবে সম্ভব সেই দুর্গত এলাকায়? রাজ্য বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে এদিন এক প্রতিনিধিল রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে দেখা করে সরাসরি এই প্রশ্ন করেন।

গত কয়েকদিন ধরেই রাজ্যে উত্তরবঙ্গের বেশকিছু জেলা বন্যাবিধ্বস্ত অবস্থায় রয়েছে। বিশেষত মালদহ, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি জেলার বড় অংশ এই সময়ে প্লাবিত। প্রশাসনের তরফে বহু এলাকায় ত্রাণই পৌঁছচ্ছে না। বন্যায় ক্ষয়ক্ষতির চিত্রও সর্বত্র ধরা পড়েনি। বহু এলাকা আজও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বন্যা দুর্গত এলাকায় কিভাবে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের তরফে এদিনই প্রকাশ করা খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধনীর কাজ সম্ভব?

রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে বৈঠক শেষে বামফ্রন্টের পক্ষে রবীন দেব সাংবাদিকদের কাছে বলেন, ‘‘আমরা বন্যা প্লাবিত এলাকার জন্য ভোটার তালিকা সংশোধনের মেয়াদ বাড়ানোর আরজি জানাই। এই বিষয়ে রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিক কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে জানান আপাতত যেখানে যেভাবে সম্ভব খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ চলুক।’’ নির্ধারিত সময়সীমা অনুযায়ী আগামী ১৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই কাজ সম্পন্ন না হলে সময়সীমা বাড়ানো হবে। এই মর্মেই এদিন রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিকের তরফে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের দাবি এদিন জানায় বামফ্রন্ট প্রতিনিধিদল।

গত মঙ্গলবার ভোটার তালিকা সংশোধনের বিষয় নিয়েই রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের সঙ্গে দেখা করতে যায় রাজ্য বামফ্রন্ট প্রতিনিধিদল। রবীন দেবের নেতৃত্বে এই প্রতিনিধিদলে ছিলেন সিপিএমের সুখেন্দু পাণিগ্রাহী, ফরওয়ার্ড ব্লকের হাফিজ আলম সইরানি, সিপিআইয়ের তপন গাঙ্গুলি, আর এসপির সুকুমার ঘোষ প্রমুখ।

গত ১৬ অগস্ট রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে বৈঠকের পর রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিকের তরফে জানানো হয়েছিল রাজ্যে খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ হবে ২২ অগস্ট। শুধু তাই নয়, ২২ অগস্ট থেকে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই খসড়া ভোটার তালিকার ওপর যাবতীয় আপত্তি, নাম নথিভুক্তির দাবি জানানোর কাজ চলবে। সেই লক্ষ্যেই আগামী ২৬ অগস্ট ও ৯ সেপ্টেম্বর স্থানীয় নির্বাচিত গ্রামসভা, পুর প্রতিষ্ঠানগুলির সঙ্গে বসে ভোটার তালিকা ভেরিফিকেশনের কাজও চলবে। এমন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই আগামী বছরের ৫ জানুয়ারি রাজ্যের চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করার কথা। এদিন রাজ্য বামফ্রন্টের তরফে রাজ্য নির্বাচনী আধিকারিকের কাছে রাজ্যে ছড়িয়ে থাকা ৭৭৩৫৪টি বুথে এই কাজ করার জন্য বুথ লেভেল অফিসারের উপস্থিতির দাবিও জানানো হয়েছে। নইলে রাজ্যের শাসকদলের তরফে একতরফাভাবে প্রকৃত ভোটারের নাম বাদ দেওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

Advertisement ---
---
-----