পাটশিল্পকে অক্সিজেন দিতে রাজ্য সরকার অভিনব উদ্যোগ

বাঁকুড়া ও হাওড়া: পাট শিল্পে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করল রাজ্য সরকার৷ পাটশিল্পে দক্ষতা বাড়াতে এই প্রশিক্ষণ৷ বাঁকুড়া ও হাওড়ায় রবিবার থেকে শুরু হয়েছে প্রশিক্ষণ প্রকল্প৷ বাঁকুড়ায় পাটশিল্পে চাকরির সুবিধার্থে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য এই প্রশিক্ষণ৷

বাঁকুড়ায় এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সূচনা করেন রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটক৷ বর্তমানে বাঁকুড়া, হাওড়া ও দমদম কর্মবিনিয়োগ কেন্দ্রের নথিভূক্ত বেকাররা এই প্রশিক্ষণের সুযোগ পাবেন৷ প্রশিক্ষণ চলাকালীন উপযুক্ত বৃত্তির পাশাপাশি প্রশিক্ষণ শেষে চাকরির সুযোগও মিলবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে৷

আগামী ১৮ জুলাই থেকে তিন মাসের এই প্রশিক্ষণে পাটশিল্পে কাজ করার প্রাথমিক ধারণা দেওয়া হবে৷ এখান থেকে এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর রাজ্যের পাটশিল্পে সহজেই কাজের সুযোগ পাবেন বলে মনে করা হচ্ছে৷ বাঁকুড়ায় প্রশিক্ষণ প্রকল্পের উদ্বোধন করে মন্ত্রী মলয় ঘটক বলেন, বর্তমানে পাটশিল্পের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে৷ ফলে এই শিল্পে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগও আছে৷

- Advertisement -

সে কারণেই দক্ষ শ্রমিকের প্রয়োজন পড়বে এটাই স্বাভাবিক৷ আর এই সুযোগটাকে কাজে লাগাতে রাজ্য সরকারের তরফে বেকারদের কাজ সুনিশ্চিত করতে এই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা৷ মন্ত্রী মলয় ঘটক ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, অরূপ চক্রবর্ত্তী, বাঁকুড়ার পুরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত প্রমুখ৷

সোমবার দমদমেও এই প্রশিক্ষণের সূচনা হবে৷ কর্মসংস্থান অধিকার শ্রমদফতর এর উদ্যোগে৷ পাটশিল্প পশ্চিমবঙ্গের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি শিল্প৷ কয়েক লক্ষ মানুষ এই শিল্পের সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যুক্ত৷ কিন্তু যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ শ্রমিকের বেশ ঘাটতি রয়েছে এক্ষেত্রে৷ তাই এই উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার৷

মোট তিন মাসের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে৷ প্রথম মাসে দেওয়া হবে প্রথাগত প্রশিক্ষণ৷ বাকি দু’মাস প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে হাতে কলমে৷ এই প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বিভিন্ন চটকলগুলিতে৷ এমপ্লয়মেন্ট ব্যাঙ্কে নাম নথিভুক্ত অষ্টম শ্রেণি পাশ করেছে এমন আঠারো বছর পার করা ছেলে-মেয়েই প্রশিক্ষণের জন্য আবেদনযোগ্য৷

প্রথাগত প্রশিক্ষণের সময় পাটকলে যে কাজগুলি হয় অর্থাৎ পাটের বাছাই, পাটকে নরম করার, পাটকে পাইলিং করার, পাটের বিভিন্ন রকম কাটিং পদ্ধতি, পাটের বিভিন্নরকম ড্রইং পদ্ধতি, পাটের স্পিনিং পদ্ধতি, পাটের বিভিন্ন রকম কাটিং পদ্ধতি ইত্যাদি সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে৷ এরপর বস্তা ছাপানো ও বস্তার প্যাকেজিং সম্পর্কে ধারণা দেওয়া হবে৷

প্রাথমিকভাবে রাজ্যের তিনটি কর্মসংস্থান কেন্দ্রে অর্থাৎ বাঁকুড়া, হাওড়া এবং দমদমে এই প্রশিক্ষণ শুরু হচ্ছে৷ এরপর গোটা রাজ্যে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এই দক্ষতাবৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে৷ রবিবার বিকেলে হাওড়ায় কর্মবিনিয়োগ কেন্দ্র আয়োজিত রামগোপাল মঞ্চে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই প্রশিক্ষণের শুভ সূচনা করেন রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক। উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায়, কর্মসংস্থান অধিকর্তা অমরনাথ মল্লিক, শ্রম দপ্তরের প্রধান সচিব এস সুরেশ কুমার, হাওড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি করবী ধূল প্রমুখ৷

হাওড়ায় ৪০ জন করে প্রতি শিফটে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে৷ প্রতিদিন এরা প্রথম মাসে ১০০ টাকা করে পাবেন৷ দ্বিতীয় মাসে প্রতিদিন ১৮০ টাকা করে এবং তৃতীয় মাসে দিন প্রতি ২৫০ টাকা করে বৃত্তি দেওয়া হবে৷ স্কিল ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে আগামী দিনে এই রাজ্যে বিপুল সংখ্যক কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে৷ রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায় বলেন, বেকারত্ব দূরীকরণের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷ তিনি অনেক পরিকল্পনা নিয়েছেন৷ বহু বেকারের কর্মসংস্থান হয়েছে৷ আগামীদিনেও বিভিন্ন চটকলগুলিতে কর্মী নিয়োগ হবে এতে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে৷

Advertisement ---
---
-----