উত্তপ্ত পাহাড়ে আজ নিষ্ফলা বৈঠকে বসছে রাজ্য

দার্জিলিং: উত্তপ্ত পাহাড় পরিস্থিতি নিয়ে ফের আজ বসতে চলছে নিষ্ফলা সর্বদলীয় বৈঠক৷ গত দু’দিন আগের সর্বদল বৈঠকে কোনও রফা না হওয়ায় আজ, বৃহস্পতিবার ফের বৈঠক ডাকা হয়৷ যদিও, বৈঠকে শাসক দলের পক্ষ থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাজির হওয়ার কথা থাকলেও মোর্চা ও পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলি অংশ নিচ্ছে না বলেই বলেই জানা গিয়েছে৷ বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী উপস্থিত না থাকার কারণ দেখিয়ে বাম ও কংগ্রেস ও বিজেপির পক্ষ থেকেও বৈঠক বয়কট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

পাহাড় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আজ দুপুরে শিলিগুড়ির স্টেট গেস্ট হাউজে বৈঠক ডাকা হয়েছে৷ তবে, সর্বদল বৈঠকে বিরোধী দলগুলির ‘বয়কটে’র সিদ্ধান্ত রাজ্য প্রশাসনের আরও চাপ বাড়িয়েছে৷ কেননা, বৈঠকে বেশিরভাগ দলই আজ উপস্থিত থাকছে না৷ ফলে, বৈঠক আজও নিষ্ফলা হতে চলেছে৷ বিরোধীদের অনুপস্থিতি ও মোর্চার অনড় মনোভাবের জেরে পাহাড় সমস্যা এখনই যে মিটছে না তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না৷

তবে, বৈঠক ‘বয়কটে’র সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমস্ত প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হয়েছে৷ তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে এদিন বৈঠকে বসবেন পাহাড়ের ১৫টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও রাজ্য সরকারের পদস্থ প্রশাসনিক কর্তারা৷ বৈঠকে থাকবেন রাজ্যের শাসকদলের বেশ কয়েকজন প্রতিনিধি৷ তবে, যে সমস্যা নিয়ে এই বৈঠকের ডাক দেওয়া হয়েছে, মোর্চার সহ পাহাড়ের দলগুলির ‘বয়কট’ বৈঠক সেই সমস্যা সমাধান আদৌও সম্ভব হবে? শুধুমাত্র শাসকদলের উপস্থিতিতে পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলির অনুপস্থিতে সর্বদল বৈঠক করে আদৌও উত্তপ্ত পরিস্থিতি আয়ত্তে আনা যাবে? সন্দিহান রাজনৈতিক মহল৷

- Advertisement -

কেননা, গত মঙ্গলবারের সর্বদল বৈঠকের পর মোর্চার পক্ষ থেকে জানানো হয়, বন্ধ প্রত্যাহার করা হবে না। রাজ্যসরকার পাহাড়বাসীর উপর পুলিশি নির্যাতন বন্ধ না করলে বন্ধ প্রত্যাহার হবে না বলেও সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়৷ দার্জিলিংয়ের জিমখানা ক্লাবে ১২টি দলের বৈঠকেও কোনও রফা না মেলায় পরে ফের বুধবার সর্বদল বৈঠক ডাকা হয়৷ ১২দলের সাড়ে তিন ঘণ্টার বৈঠকেও সমস্যা সমাধান না মিললেও এদিনের মোর্চা সহ পাহাড়ের দলগুলির ‘বয়কট’ সেই সমস্যা মেটার কোনও সম্ভাবনই দেখতে পারছেন না রাজনৈতিক মহল৷