‘স্মিথ কিন্তু ড্রাগ অপরাধী নয়’

সিডনি: ধুলোয় মিশেছে সম্মান, স্মিথ যেন আজ জাতীয় প্রত্যারক৷

ক্রিকেটের সঙ্গে প্রতারণা করে মুহূর্তেই জাতীয় হিরো থেকে স্মিথ আজ জাতীয় ভিলেন৷ এই প্রথম কোনও দেশের বিমানবন্দরে অপরাধীর মতো অভ্যর্থনা পেলেন অস্ট্রেলিয়ার বরখাস্ত অধিনায়ক৷ অস্ট্রেলিয়ায় ফিরে আসার জন্য জোহানেসবার্গ বিমানবন্দরে পৌঁছে কার্যত সমস্যায় পড়েছেন স্মিথ৷ সেখানে ক্ষুব্ধ ক্রিকেটভক্তদের থেকে তাঁকে বাঁচাতে পুলিশকর্মীরা এসকর্ট করে বিমানবন্দরের ভিতরে নিয়ে যায়৷ লবিতে দাঁড়িয়ে থাকা যাত্রীরা স্মিথকে দেখে মুখের উপর প্রত্যারক বলেও গালাগাল করতেও ছাড়েনি৷

বিমানবন্দরের ভিডিওতে দেখা গিয়েছে প্রায় দশজন পুলিশকর্মীর ঘেরাটোপে অপরাধীর মতো লবি দিয়ে এগিয়ে চলেছে স্মিথ৷ হাতেই যেন শুধু হ্যান্ডক্রাফট নেই৷বাকি দৃশ্য দেখে ক্রিকেট দুনিয়ার সঙ্গে পরিচয় নেই এমন কেউ বলতেই পারেন ওয়ান্টেড ক্রিমিনালকেই কী ধরে বেঁধে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে আদালতে৷

- Advertisement -

এই দৃশ্যের তীব্র নিন্দা করেছেন প্রাক্তন ব্রিটিশ ক্রিকেটার কেভিন পিটারসন৷ দৃশ্যটি ফেসবুকে শেয়ার করে কেপি লিখেছেন, স্মিথ কিন্তু অপরাধী নয়৷ ও ক্রিকেটার৷ তাই ওর সঙ্গে ক্রিকেটারসুলভ আচরণই কাম্য৷এর আগে ক্রিকেটের সঙ্গে প্রত্যারণা করায় স্মিথ সহ স্যান্ডপেপার গেট কাণ্ডে জড়িত অপরাধী ক্রিকেটারদের কঠিনতম শাস্তির জন্য সোচ্চার হয়েছিলেন পিটারসন৷ তবে স্মিথের সঙ্গে এভাবে অপরাধীসুলভ আচরণ করা হচ্ছে, সেটা মেনে নিতে পারেননি তিনি৷


শুধু ক্রিকেটাররাই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রিকেট অনুরাগীরাও লিখেছেন, ‘অজিদের বরখাস্ত অধিনায়ক কিন্তু কোনও ড্রাগ ডিলার নয়, যে বিমানবন্দরে ওর সঙ্গে এমন আচরণ করতে হবে৷’ পুলিশের আচরণ নিয়েও প্রশ্ন উঠছে৷ চিত্রে ধরা পড়েছে পুলিশ প্রায় টেনে হিঁচড়েই স্মিথকে বিমানবন্দরের ভিতরে নিয়ে যায়৷

ক্রিকেট কেরিয়ারে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার মাঠে এমন ক্রিকেটবিরোধী আচরণ করলেন স্মিথ৷ এর আগে ২০১৭ সালে ভারত সফরে টেস্ট সিরিজ খেলতে এসে আউট হয়ে ডিআরএস নেওয়ার আগে নিয়ম ভেঙে ড্রেসিংরুমের থেকে মতামত নিতে চেয়ে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন৷

এবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে কেপটাউনে টেস্টে স্যান্ড পেপার গেট কাণ্ডে পরিকল্পনা করে জুনিয়র ক্রিকেটারকে দিয়ে বল বিকৃতি করিয়েছেন স্টিভ স্মিথ৷ পুরো ঘটনা ফাঁস হতে পালানোর রাস্তা না খুঁজে পেয়ে দোষ স্বীকার করে নেন অজি অধিনায়ক৷


এতে শাস্তি কিছুটা কমতে পারে এই আশায় কেরিয়ারের দ্বিতীয় ব্রেন ফেড কাণ্ড মেনে নিলেও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া স্মিথকে চূড়ান্ত শাস্তি দিয়েছে৷ সব ধরনের ক্রিকেট থেকে থেকে স্মিথ ও ওয়ার্নারকে এক বছরের নির্বাসনে পাঠিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট বোর্ড৷ দুই ক্রিকেটারের এই মরশুমের আইপিএল চুক্তিও বাতিল করা হয়েছে৷

Advertisement ---
---
-----