কাঁকিনাড়ার বন্ধ কারখানা এখন অস্ত্র কারবারীদের ডেরা

বারাকপুর: বেআইনি অস্ত্র কারখানার হদিস মিলল উত্তর ২৪ পরগনার কাঁকিনাড়ায়৷ স্থানীয় পরিত্যক্ত একটি লাড্ডু কারখানায় রমরমিয়ে অস্ত্র কারখানা চলত বলে উঠছে অভিযোগ৷ কাঁকিনাড়ার ম্যানেজার বাগান এলাকার ঘটনা৷ পুলিশের জালে অস্ত্র তৈরির পাঁচ কারিগর৷

আরও পড়ুন: ‘তিন বছর আগেই ঠিক হয়েছিল ইমরানই হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী’

গোপনসূত্রে এই খবর পৌঁছয় লালবাজারে৷ সেখানকার স্পেশাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ) তদন্তে নামে৷ এরপরই তারা জগদ্দল থানার পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে সোমবার দুপুরে হানা দেয় ওই পরিত্যক্ত লাড্ডু কারখানায়৷ পুলিশ সূত্রের খবর, পরিত্যক্ত ওই লাড্ডু কারখানার ভিতরে সেই সময় তৈরি হচ্ছিল বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র৷

- Advertisement DFP -

ওই কারখানার ভিতরে এসটিএফ এবং পুলিশের হাতে ধরা পড়ে যায় ৫জন অস্ত্র কারবারে অভিযুক্ত৷ সোমবার দুপুর থেকে ওই পরিত্যক্ত লাড্ডু কারখানায় হানাদারি চালায় লালবাজারের বিশেষ পুলিশ বাহিনী৷ পুলিশ সূত্রে খবর, গত দেড় বছর ধরে পরিত্যক্ত এই লাড্ডু কারখানার ভিতরে বেআইনি অস্ত্র তৈরি করা হচ্ছে৷

দেড় বছর আগে এই লাড্ডু কারখানায় ভয়াবহ আগুন লাগলে৷ তারপরই কারখানাটি বন্ধ হয়ে যায়৷ পুলিশ সূত্রের খবর, জনৈক কালিচরন সাউ এই বাড়ির মালিক৷ তাঁর বিরুদ্ধেও অভিযোগ গুরুতর৷ অভিযোগ, লাড্ডু কারখানাটি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর তিনি নাকি সাত হাজার টাকার মাসিক ভাড়ায় বাড়িটি একদল দুষ্কৃতীকে দেন৷

আরও পড়ুন: আমশোলের আতঙ্ক ফিরিয়ে বাংলায় ফের অপুষ্টির বলি দুই বোন

যদিও পুলিশি অভিযানের খবর ছড়াতেই এলাকা ছেড়ে বেপাত্তা বাড়ির মালিক কালিচরণ৷ এসটিএফ ওই বাড়ির ভিতর থেকে অভিযুক্ত পাঁচ অস্ত্র কারবারিকে গ্রেফতার করে লালবাজারে নিয়ে গিয়েছে৷ এই চক্রের সঙ্গে আরও কেউ জড়িত আছে কি না তা তদন্ত করে দেখছে স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের আধিকারিকরা৷

কয়েকমাস আগেই ইছাপুরের রাইফেল ফ্যাক্টরির ভিতর থেকে অস্ত্রকারবারির খোঁজ মিলেছিল৷ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে সে অস্ত্র সরবরাহ হত বলেও অভিযোগ উঠেছিল৷ সেই তথ্যও ফাঁস করে স্পেশাল টাস্ক ফোর্সই৷ এবার ইছাপুর থেকে কিছু দূরে কাঁকিনাড়াতে মিলল অস্ত্র কারখানার হদিশ৷ এই দুই ঘটনার মধ্যে কোনও সম্পর্ক রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখছে স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের আধিকারিকরা৷

Advertisement
----
-----