ছাত্রনেতা খুনে অভিযুক্তদের ছবি ঝুলল কোচবিহার শহরজুড়ে

কোচবিহার: তৃণমূল ছাত্রনেতা খুনের ঘটনায় এখনও উত্তপ্ত কোচবিহার শহর৷ তৃণমূল নেতা মুন্না খান গ্রেফতার হলেও বাকি অভিযুক্তদের খোঁজে পুলিশ৷ ছাত্র নেতা মাজিদ আনসারির খুনে অভিযুক্তদের ছবি দিয়ে ফ্লেক্স তৈরি করা হয়েছে৷ শহরের বিভিন্ন জায়গায় সেই ফ্লেক্স ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে৷ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের একাংশই এই ফ্লেক্স তৈরি করেছেন, এমনটাই শোনা যাচ্ছে৷

কোচবিহার কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মাজিদ আনসারি৷ গত ১৩ জুলাই কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া গুলিতে আহত হন তিনি৷ ১২ দিন যমে মানুষে টানাটানির পর হাল ছাড়তে বাধ্য হন মাজিদ৷ ২৫ জুলাই শিলিগুড়ির একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর৷

আরও পড়ুন: হিন্দু তীর্থযাত্রীদের সঙ্গে পা মেলালেন মুসলিমরাও

- Advertisement -

মাজিদকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ঘটনায় ১৩ জুলাই রাতেই সাতজনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। যাদের অধিকাংশই কোচবিহার কলেজের প্রাক্তন ছাত্র৷ এই খুনের নেপথ্যে উঠে আসে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত মুন্না খানের নাম।

অভিযোগ দুষ্কৃতীদের মদত দিয়েছিল মুন্না খান। মাজিদের মৃত্যুর পরেই গ্রেফতার হয় মুন্না। কিন্তু বাকি অভিযুক্তরা এখনও অধরা৷ এই ঘটনায় যথেষ্টই চাপে উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ৷ তৃণমূল সূত্রে এমনটাও শোনা যাচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং এই ঘটনার জন্য রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে তিরষ্কার করেছেন৷ যদিও দলের কেউ সরাসরি এ কথা স্বীকার করছেন না৷

আরও পড়ুন: ছাত্রনেতা খুনে গ্রেফতার তৃণমূলের মুন্না

তবে উপরমহলের নির্দেশের পরই মুন্নার গ্রেফতারি ও পুলিশের সক্রিয়তা বলে মনে করছেন কলেজ পড়ুয়াদের কেউ কেউ৷ খোঁজ চলছে বাকি অভিযুক্তদের৷ পুলিশ সূত্রে খবর, ভিন রাজ্যে গা ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্তরা। মাজিদ হত্যায় দোষীদের কঠোর শাস্তি দাবি উঠছে শহরজুড়ে৷

এদিকে দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে কোচবিহার কলেজের পরীক্ষা স্থগিত রাখা হয়েছে৷ ছাত্র-ছাত্রীদের দাবি, কলেজের ছাত্রকে খুন করা হল৷ এই ঘটনায় সকল অপরাধীকে গ্রেফতার করতে হবে৷ আর তা না যতক্ষণ হচ্ছে পরীক্ষা বয়কট চলবে৷

আরও পড়ুন: Breaking: বাজ পড়ে ময়দানে মৃত এক

মাজিদের খুনি এবং তাঁদের মদতদাতাদের মানুষ যাতে চিনতে পারে সে জন্যই শনিবার কোচবিহার শহরের বিভিন্ন জায়গায় মুন্না খানের সঙ্গে অভিযুক্তদের ছবি টাঙিয়ে দেয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের একটি অংশ। অভিযুক্তদের সঙ্গে মুন্না খানের পাশাপাশি মুন্না খানের সঙ্গে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ঘনিষ্ঠতা প্রমাণ করতে মন্ত্রী ও মুন্না খানের ছবিও ফ্লেক্স আকারে লাগানো হয়েছে শহরজুড়ে৷ মাজিদের এক সহপাঠী রিয়া নন্দীর কথায়, ‘‘আমরা চাই এই দুষ্কৃতীদের সকলে চিনুক৷ এবং এদের সঙ্গে কোন নেতারা আছে তাও জানুক মানুষ৷ এর জন্যই এই সিদ্ধান্ত৷’’

Advertisement ---
---
-----