ফাইল ছবি

সুভাষ বৈদ্য,কলকাতা: কোথাও সপরিবারে আত্মহত্যার চেষ্টা কোথাও আবার মেট্রো দুর্ভোগ৷ অন্যদিকে নববর্ষের রাতে রাজপথে আক্রান্ত তরুণী৷ সে ঘটনায় গ্রেফতার ছ’জন যুবক৷ এই রকমই নানা ঘটনার সাক্ষী থাকলো কলকাতা ও বিধাননগর৷

সকাল ৮.৩০ 

নিউটাউনে বৃদ্ধের রহস্য মৃত্যু৷ শোয়ার ঘর থেকে রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার৷ নীলমণি ঘোষ নামে ওই মহিলা নিউটাউন থানার চন্ডিবেড়িয়া বিবেকানন্দপল্লীর বাসিন্দা৷ বয়স ৮০ বছর৷ বুধবার সকালে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন নীলমণি ঘোষ তার শোয়ার ঘরে উপুড় হয়ে পড়ে রয়েছেন৷ নাক দিয়ে রক্ত বের হচ্ছে৷ পুলিশ তাকে বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসে৷ সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে৷ দেহ ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে৷ অস্বাভাবিক মৃত্যু না খুন খতিয়ে দেখছে নিউটাউন থানার পুলিশ৷

 

সকাল ৯.১৮ 

দমদম মেট্রো স্টেশনে যুবকের আত্মহত্যা৷ সকালে নিউ গড়িয়াগামী ট্রেন প্ল্যাটফর্মে ঢুকতেই ওই যুবক লাইনে ঝাঁপ দেয়৷ সঙ্গে সঙ্গে থার্ড লাইনে পাওয়ার ব্লক করে দেওয়া হয়৷ দমদম স্টেশন থেকে ডাউন লাইনে সব মেট্রো চলাচল বন্ধ হয়ে যায়৷ অর্থাৎ ডাউন লাইনে দমদম থেকে গিরিশ পার্ক পর্যন্ত প্রায় পঁয়তাল্লিশ মিনিট বন্ধ ছিল মেট্রো চলাচল৷ লাইন থেকে দেহ উদ্ধারের পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়৷ ততক্ষণে চরম দুর্ভোগে পড়েন অফিস যাত্রীরা৷ দেহ ময়না তদন্তের জন্য আরজি কর হাসপাতালে পাঠানো হয়৷

সকাল ১০.৩০ 

এক ঘন্টার ব্যবধানে ফের দুর্ভোগ মেট্রোয়৷ দমদমে আত্মহত্যার পর এবার ঘটনাস্থল কবি নজরুল মেট্রো স্টেশন৷ যান্ত্রিক ত্রুটিতে মেট্রোর এসি রেকে দরজা খুলছিল না৷ ফলে ট্রেনের মধ্যেই আটকে পড়েন বহু যাত্রী৷ তখন ট্রেনটি কবি সুভাষ থেকে নোয়াপাড়ার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল৷ তখনই ঘটনাটি ঘটে৷ সঙ্গে সঙ্গে মেট্রো লাইনের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়৷ এবং চালকের গেট দিয়ে যাত্রীদের বের করে আনা হয়৷

দুপুর ১টা

গড়ফা থানার পূর্বাঞ্চল এলাকার ঘটনা৷ সপরিবারে আত্মহত্যার চেষ্টা একই পরিবারের তিনজনের৷ তাদের মধ্যে এক জনের মৃত্যু হয়েছে৷ বুধবার দুপুরে ঘরের দরজা ভেঙে ৬৬ বছর বয়সের বাসন্তী বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ বৃদ্ধের পাশেই মাটিতে অচেতন অবস্থায় লুটিয়ে পড়েছিল ১৫ বছরের ছেলে ও তার মা আরতিদেবী (৪২)। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ ঘর থেকে মিলেছে সুইসাইড নোট৷ পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, বিষ জাতীয় কিছু বা ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করেন তাঁরা। মানসিক অবসাদ না আর্থিক অনটনে আত্মহত্যার চেষ্টা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷

বিকেল ৩.১৫ 

উত্তর কলকাতার আমহার্স্ট স্ট্রিটে ছাত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা৷ বুধবার বিকালে তার স্কুলের ছাদ থেকেই ঝাঁপ দেয় একাদশ শ্রেণির ওই ছাত্রী৷ রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷ সূত্রের খবর, নতুন বছরে বাবার কাছে মোবাইল চেয়েছিল কিন্তু তা না পাওয়াতেই হতাশ হয়ে পড়েন ছাত্রী। নিছক দুর্ঘটনা নাকি আত্মহত্যার চেষ্টা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ স্কুল সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর ষোলোর ওই ছাত্রী অত্যন্ত মেধাবী, পড়াশোনায় খুবই ভালো। বরাবর স্কুলে ভালো রেজাল্ট করে এসেছে।

বিকেল ৩.৩০

সল্টলেক সেক্টর ফাইভের একটি ভেড়ি থেকে উদ্ধার এক যুবতীর দেহ৷ এদিন ডাক্তার ভেড়িতে একটি দেহ ভেসে উঠতে দেখেন স্থানীয়রা। খবর দেওয়া হয় ইলেকট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানায়। পুলিশ গিয়ে ভেরিতে ডুবুরি নামিয়ে দেহটিকে তুলে আনা হয়। মৃতার বয়স ৩০-৩৫ বছরের মধ্যে হবে। তবে তাঁর পরিচয় এখনও জানা যায়নি। দেহে কোনও আঘাতের চিহ্ন না থাকলেও দেহটি ফুলে উঠেছে। ফলে বর্ষবরণের রাতে কেউ তাঁকে খুন করে জলে ফেলে দিতে পারে বলেও মনে করছে পুলিশ

বালিগঞ্জ

নববর্ষের রাতে রাজপথে আক্রান্ত হয়েছিলেন তরুণী৷ তাকে উদ্দেশ্য করে অশালীন উক্তি করেন কয়েকজন যুবক৷ প্রতিবাদ করায় মারধর করা হয় তরুণীর সঙ্গীকে৷ ভেঙে দেওয়া হয় গাড়ির উইন্ডস্ক্রিন৷ এখানেই শেষ নয় তরুণীর পোশাক ধরেও টানাটানি করা হয় বলে অভিযোগ৷ ঘটনাটি ঘটেছিল সেদিন পদ্মপুকুর রোডে রাত ২টো নাগাদ৷ ঘটনার সময়ই তরুণী থানায় যাওয়ার সময় বালিগঞ্জ থানা পর্যন্ত ধাওয়া করে দুষ্কৃতীরা৷ বাঁশ নিয়ে তাড়া করা হয় দুই তরুণীকে৷ অবশেষে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন তরুণীরা৷ সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পরে গ্রেফতার করা হয়েছে ছ’জনকে৷

--
----
--