নয়াদিল্লি: আদালতে পেশ করার মতো উপযুক্ত কোনও নথি নেই। তবুও তাজমহলের মালিকানা নিতে আগ্রহী সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড।

তাজমহল দেশের জাতীয় সম্পত্তি। রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া। কিন্তু সপ্তদশ শতকে নির্মিত সেই সৌধের দায়িত্ব নিতে চায় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। এই নিয়ে মামলা চলছে সুপ্রিম কোর্টে।

দীর্ঘদিন ধরে এই মামলাটি চলছে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে। যদিও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্তে এখনও নিতে পারেনি আদালত।

অন্যদিকে, তাজমহলের অধিকার দখল করার মতো উপযুক্ত কোনও নথিও আদালতে পেশ করতে পারেনি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। তাদের দাবি, তাজমহলের অধিকারী মহান সৃষ্টিকর্তা বা আল্লাহ। এই ধরনের জাতীয় সম্পদ যে কোনও ব্যক্তি বা সংস্থা নিজেদের হেফাজতে নিতে পারে না সেটিও স্বীকার করে নিয়েছেন সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী। কিন্তু, দীর্ঘদিন ধরে তাজমহলে প্রার্থণা সহ অন্যান্য ধর্মীয় রীতি মেনে আসার কারণে তাজমহলের আইনানুগ অধিকার সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের পাওয়া উচিত। এমনই দাবি করেছেন তাদের আইনজীবী।

যদিও আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার আইনজীবী জানিয়েছেন যে শুধুমাত্র দীর্ঘদিনের রেওয়াজের উপর ভিত্তি করে চলতে থাকলে লালকেল্লা বা ফতেপুর সিকরি-র মতো সৌধেরও মালিকানা দাবি করবে কোনও কোনও সংস্থা। যা নিয়ে ক্রমশ জটিলতা বৃদ্ধি পাবে।

ইতিহাস অনুসারে, স্ত্রী মমতাজের স্মৃতির উদ্দেশ্যে সম্রাট শাহজাহান তাজমহল তৈরি করেছিলেন। তাজমহল তৈরির ১৮ বছর পরে ১৬৬৬ সালে শাহজাহানের মৃত্যু হয়। কিন্তু, তাজমহল যে সম্রাট শাহজাহানের সম্পত্তি সেই বিষয়ে কোনও নথি নেই। গত শুনানির সময়ে শাহজাহানের স্বাক্ষর সম্বলিত নথি আদালত পেশ করতে বলে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে। খুব স্বাভাবিকভাবেই তা তারা পেশ করতে পারেননি।

মঙ্গলবার সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে বলেছেন, “আদালতে পেশ করার মতো কোনও নথি আমাদের কাছে নেই। দীর্ঘদিনের রীতি অনুসারে তাজমহলের দায়িত্ব সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের হাতেই ন্যস্ত হওয়া উচিত।” আগামী জুলাই মাসের ২৭ তারিখে এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

---