বন্যা বিধ্বস্ত কেরলের পাশে বাংলার সুলেমান, হায়দাররা

বাসুদেব ঘোষ, সিউরি: ভয়াবহ বন্যায় ঘুচেছে উচ্চ নীচ, সম্প্রদায়ের বিভেদ৷ সব হারিয়ে কেরলের মানুষ আজ প্রায় সর্বহারা৷ বন্যাদুর্গদের সহায়তাতেও তাই নেই জাতপাতের ভেদ৷ কোরবানির ঈদের নামাজপাঠ শেষে বন্যাবিধ্বস্ত কেরলের জন্য ত্রাণ সংগ্রহ করলেন শিউরির কাজী, হায়দার, সুলেমানরা৷ চারদিকে শূন্যতার মাঝে এও এক উজ্জ্বল দিশা৷

বন্যা বিধ্বস্ত কেরল৷ জল ক্রমশ নামলেও স্মৃতি যেন বিভিষিকা৷ দলের তোরে ভেসে গিয়েছে সবকিছু৷ মানুষ আজ সর্বহারা৷ গোটা দেশ বাড়িয়েছে সহায়তার হাত৷ বাদ নেই এরাজ্যের বাসিন্দারাও৷

কোরবানির ঈদের দিনই উঠে এলো মমত্ত্বের ছবি৷ সিউরির ঈদগাহ ময়দানে হয় সব চেয়ে বড় নামাজ পাঠ৷ এদিনও তার ব্যতিক্রম হয়নি৷ প্রায় ২০ হাজার মুসলিম নামাজ পাঠে আংশ নেন৷ তারপর গামছা পেতে তাঁরা ত্রাণ সংগ্রহ করলেন কেরলবাসীর জন্য৷ তখন যেন ‘মিলে সুর মেরা তুমহারা৷’

- Advertisement -

এই প্রসঙ্গে শিউরি পুরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী ফজরুদ্দীন বলেন, ‘‘আমরা সবাই ভারতবাসী৷ বিপদের দিনে ধর্মীয় ভেদাভেদের কোনও স্থান নেই৷ এটাই ভারতের ঐতিহ্য৷’’ প্রয়োজনে ফের ত্রাণ সংগ্রহের আশ্বাস দিয়ে রেখেছেন তিনি৷ জেলা শাসকের মাধ্যমে সংগৃহীত ত্রাণ পাঠানো হবে কেরলের বন্যাদুর্গতদের কাছে৷

প্রতিটি ধর্মই ভেদাভেদ ভুলে মিলনের বার্তা দেয়৷ তারই সার্থক প্রতিফল আজ উঠে এল সিউড়ির বুকে৷

Advertisement ---
-----