শরীর-মনকে সুস্থ এবং চাঙ্গা রাখতে কেন করতেই হবে সূর্য নমস্কার?

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: যোগার জন্য সুরয়ানমস্কার অত্যন্ত জরুরি৷ কারণ এর মাধ্যমেই পুরো শরীরকে ওয়ার্ম আপ করা হয়৷ বাকি যোগা করার জন্য শরীরকে প্রস্তুত করা হয়৷ সূর্য নমস্কার বা প্রণাম করেই এই যোগার শুরু৷ এর অর্থই হল সূর্যের প্রতি নিজের প্রণাম জানিয়ে শ্রদ্ধা জানানো৷ মোট বারোটি আলাদা আলাদা অঙ্গবিন্যাস৷ যার প্রতিটির আলাদা আলাদা উপকারিতা রয়েছে৷

এই সূর্যনমস্কারেই শরীরকে সব থেকে বেশি স্ট্রেচ করা যায়৷ একমাত্র এই একটি আসনেই সারা শরীরের প্রসারণ হয়৷ এই আসন করার নিয়ম হল এটি খালি পেটে করতে হয়৷ এবং সঠিক সময় হল ভোর বেলা অথবা রাতে ডিনার করা আগে৷ তবে আপনার হাই ব্লাড প্রেশার বা উচ্চ রক্তচাপ এবং কোমরে ব্যথা বা স্লিপ ডিস্কের সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নিন আগে৷

এই আসনের নিয়ম হল প্রথমে আপনি শিরদাঁডা় সোজা করে দাঁড়ান৷ পায়ের পাতা সোজা সামনের দিকে রাখুন৷ পা খুব সামান্যই ফাঁকা রেখে দাঁড়ান৷ দুটো কাঁধকে একবার ঘুরিয়ে নিয়ে সামান্য পেছনে নিয়ে যান ও বুক সোজা রাখুন৷ মুখ বা থুতনি সামনের দিকে সোজা থাকবে৷ সামনের দিকে কোনও একটা নির্দিষ্ট পয়েন্টে তাকিয়ে থাকুন৷ স্বাভাবিক শ্বাস প্রশ্বাস নিন৷ প্রথম পজিশনে হাত দুটো জোড়া করে বুকের সামনে রাখুন৷

- Advertisement -

এবার সেখান থেকেই হাত সোজা ওপর দিকে তুলে দিয়ে পেছনে নিয়ে যান৷ আর্চ করে এই ভাবে দাঁড়ান৷ এতে পেট থেকে হাত পর্যন্ত টান পড়ে৷ মাথাও হাতের সঙ্গে সঙ্গেই পেছন দিকে যাবে৷ এবার সোজা হয়ে সামনের দিকে ঝুঁকে যান৷ পা সোজা হাতের তালু দুটো মাটিতে ছড়িয়ে রাখতে হবে৷ পা আর হাতের আঙুল সব পাশাপাশি একটাই লাইনে থাকবে৷ এবার ডান পা পেছনের দিকে নিয়ে যান৷ এটি হল চার নম্বর ধাপ৷

পায়ের হাঁটু থেকে নীচের অংশ পুরোপুরি মাটির সঙ্গে ছুঁয়ে থাকবে৷ কোমর নীচের দিকে থাকবে৷ চোয়াল থাকবে ওপরে ও বুক থাকবে ছড়ানো৷ পাঁচ নম্বর ধাপে বাঁ পা কেও পেছনে নিয়ে দুটো পাই এবার জোড়া করুন৷ কাঁধ এবং হাতের কব্জি একটাই লাইনে থাকবে৷ ঘার আর শিরদাঁড়া একটাই লাইনে থাকবে৷ পায়ের পাতা জোড়া থাকবে গোড়ালিও জোড়া থাকবে৷ ছ নম্বর ধাপে হাঁটুকে মাটিতে নামিয়ে দিন৷ কোমর ওপরে রেখে বুককে মাটিতে নামিয়ে আনুন৷ কনুই শরীরের সঙ্গে জুড়ে দিন৷ থুতনি থাকবে মাটিতে ঠেকানো৷ এক্ষেত্রে আপনি থুতনির জায়গায় মাটিতে কপাল ও রাখতে পারেন৷ যেটায় আপনার সুবিধা মনে হয়৷

এরপর বুককে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে এসে ওপরে তুলুন৷ থুতনি রাখুন ওপরের দিকে৷ পায়ের পাতা শুইয়ে রাখুন মাটিতে৷ গোড়ালি জোড়া রাখুন৷ থাই জোড়া রাখুন৷ পিঠ সামান্য পিছন দিকে বাঁকানো থাকবে৷ এবার পজিশন আট৷ পায়ের পাতার ওপর ভর দিন৷ কোমরকে ওপরে তুলে ফেলুন৷ ঠিক পিরামিডের মত দেখতে হবে বা উলটোনো ‘V’ এর মত৷ হাঁটু জোড়া থাকবে৷ গোড়ালিকে চেষ্টা করুন মাটির সঙ্গে ছোঁয়াতে৷ তবে না পরলেও চলবে৷ মাথা থাকবে দুই হাতের মাঝখানে৷ মাথা মাটি ছোঁয়ার চেষ্টা করবে আর হাত থাকবে বাইরের দিকে৷ ছড়ানো৷

ন নম্বর ধাপে ডান পা একেবারে সামনে নিয়ে চলে আসুন, ডান হাতের ভেতরে রাখুন৷ থুতনি ওপরে বাঁ পায়ের হাঁটু মাটি ছুঁয়ে থাকবে৷ পায়ের পাতা থাকবে শোয়ানো৷ মাথায় রাখবেন ডান পায়ের হাঁটু আর গোড়ালি একটা সোজা লাইনে থাকবে৷ হাতের তালু থাকবে মাটিতে ছড়ানো৷ এবার বাঁ পা সামনে এনে কোমর ভেঙে দাঁড়ান৷ মাথা নীচের দিকে করে রাখুন যাতে নাক হাঁটুতে ঠেকতে পারে৷ হাতের তালু মাটিতেই ছিল সেখান থেকে এবার আস্তে আস্তে পুরো শরীরকে ওপরের দিকে সোজা করে তুলুন৷ এবার মাথা পেছনের দিকে নিয়ে গিয়ে পিঠটা বেঁকিয়ে দিন৷

থুতনি থাকবে ওপরের দিকে৷ এবার বারো নম্বর ধাপে আবার শুরুর মত হাত জোড়া করে বুকের কাছে এনে প্রণাম করুন৷ সারা শরীরের পেশিতে টান পরে এই আসনে৷ শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় ও জড়তা কাটায় এই আসন৷ রোজ সূর্য প্রণাম করুন ও সুস্থ থাকুন৷

Advertisement ---
---
-----