ছেলেধরা সন্দেহে স্কুলের মধ্যেই গণপিটুনি

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ছেলেধরা সন্দেহে এক ব্যক্তিকে আটক করে মারধরের ঘটনা ঘটল বাঁকুড়া সদর থানা এলাকার বেলবনী গ্রামে। পরে ঘটনাস্থলে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ পৌঁছে সুভাষ বাউরি নামে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার বেলবনী নেতাজি সুভাষ শিশুশিক্ষা কেন্দ্রের ভিতরে অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তি ঘোরাঘুরি করছিল। এমনকী মেয়েদের শৌচাগারেও সে ঢোকার চেষ্টা করছিল বলে স্কুল কর্তৃপক্ষ ও গ্রামবাসীদের অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তিকে ধরে ব্যাপক মারধর করে।

আরও পড়ুন: ভুল চিকিৎসায় ডেঙ্গু আক্রান্তের মৃত্যুর অভিযোগ

- Advertisement -

তাঁদের অভিযোগ, শিশু চুরির উদ্দেশ্যেই ওই ব্যক্তি স্কুলের ভিতরে ঢুকেছিল। পরে খবর পেয়ে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ গ্রামে পৌঁছে গুরুতর আহত ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে।

ওই স্কুলের শিক্ষক শ্যামল কর্মকার বলেন, ‘‘আমাদের স্কুলে বেশ কিছু গাছ লাগানোর কথা বলে ওই ব্যক্তি স্কুলে ঢোকে। গঙ্গাজলঘাটি থেকে আসছি বলেও জানায়। কিন্তু তার আচরণে সন্দেহ হওয়ায় তাকে স্কুল থেকে বেরিয়ে যেতে বলা হয়। কিন্তু সে স্কুল থেকে না বেরিয়ে মেয়েদের শৌচাগারের সামনে বসে থাকে। ছাত্রীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে তাকে ধরা আনা হয়। অসংলগ্ন কথা বার্তা ও আচরণে আমাদের সন্দেহ হওয়াতে অভিভাবকদের খবর দেওয়া হয়। সন্দেহ করা হচ্ছে এই ব্যক্তি শিশু চুরির চক্রের সঙ্গে জড়িত।’’ এমনকী এই চক্রে ছ’জন জড়িত বলে সে স্বীকার করেছে বলে শিক্ষক শ্যামল কর্মকার দাবি করেন।

আরও পড়ুন: এগিয়ে নীরাজ, খেলরত্নের দৌড়ে মীরাবাঈ, বজরংও

এই ঘটনা ঘিরে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানানো হয়েছে।

Advertisement ---
---
-----