স্বামী অগ্নিবেশের হামলায় ছাড়া পেল অভিযুক্তরা

পাকুর: সমাজকর্মী স্বামী অগ্নিবেশকে মারধরের ঘটনায় অভিয়ুক্তদের ছেড়ে দিল ঝাড়খণ্ড পুলিশ৷ উপযুক্ত প্রমাণ না মেলায় আটকদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এসপি শৈলেন্দ্র প্রসাদ বুরনওয়াল৷ বিজেপির যুব মোর্চার ১০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়৷ তার মধ্যে ৮ জনকে চিহ্নিত করা গিয়েছিল৷ সেই ৮ জনকে জেরার জন্য আটক করা হয়৷ পরে তাদেরই ছেড়ে দেয় পুলিশ৷

গোটা ঘটনাকে বিজেপির পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন স্বামী অগ্নিবেশ৷ অগ্নিবেশের হামলার ঘটনায় গঠিত হয়েছে সিট৷ মঙ্গলবারই সমাজকর্মী স্বামী অগ্নিবেশ হামলা চালায় বিজেপি যুব মোর্চা কর্মী-সদস্যরা৷ কিল-চড়, লাথি-ঘুষি পাশাপাশি তাঁকে লক্ষ্য করে পাথরও ছোডা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে৷ যুব মোর্চা ছাড়াও আরএসএস এবং ভিএইচপি সদস্যরাও এই ঘটনায় জড়িত বলে অভিযোগ ওঠে৷ যদিও রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী রঘুবর দাস এই ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেয়, বুধবার ঝাড়খম্ড আদালতের নির্দেশে সিট গঠিত হয়৷

আরও পড়ুন: হিনা খানের নতুন নাম ‘গোল্ড ডিগার’

- Advertisement -

মঙ্গলবার ঝাড়খণ্ডের পাকুরে একটি সম্মেলনে যোগ দিতে যাওয়ার জন্য স্বামী অগ্নিবেশের রাঁচীতে একটি হোটেলে উঠেছিলেন৷ সেই হোটেলের বাইরে জমায়েত করে যুব মোর্চা, আরএসএস এবং ভিইচপি-এর কর্মীরা। এদিকে স্বামী অগ্নিবেশকে সন্মেলনে নিয়ে যেতে ওই হোটেলের বাইরে তির-ধনুক নিয়ে হাজির হয়েছিলেন অসংখ্য আদিবাসীও। তিনি হোটেলের থেকে বাইরে আসতেই বিজেপি যুব মোর্চার কর্মীরা তাঁকে কালো পতাকা দেখিয়ে স্লোগান দিতে থাকে৷ এরমধ্যে কয়েকজন একেবারে আচমকাই স্বামী অগ্নিবেশের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে৷ এলোপাথাড়ি মারধর পাথর ছোড়া শুরু হয়৷ বিক্ষোভকারীদের কাছ থেকে তাঁকে উদ্ধার করে হাসসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুন: রাস্তা সংস্কারের দাবিতে অভিনব বিক্ষোভে এলাকাবাসী

এমন ঘটনায় অবাক হয়ে স্বামী জানিয়েছেন, তিনি শান্তিপ্রিয় মানুষ এবং সব রকম হিংসার বিরুদ্ধে ৷ সেখানে তাঁর উপর কেন এমন হামলা হল বলে প্রশ্ন তুলেছেন৷ঝাড়খন্ড পুলিশকে নিরাপত্তার বিষয়ে অনুরোধ করা হলেও তা গ্রাহ্য না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি৷ এই ঘটনার নিন্দা করলেও রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র পি শাদে স্বামীকে কটাক্ষ করতেও ছাড়েননি৷ তাঁর বক্তব্য, স্বামী অগ্নিবেশের যা রেকর্ড তাতে এমন হওয়াটা আশ্চর্যের নয়। মঙ্গলবারই ঝাড়খণ্ডের রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করারা কথা ছিল অগ্নিবেশের৷ যা হামলার ঘটনার পর বাতিল করা হয়৷ অগ্নিবেশের দাবি, ফোনে বৈঠকের সময় ঠিক হোলেও পরে তা বাতিল করা হয়৷ তাঁকে অপমান করতেই এই ঘটনা বলে দাবি৷

Advertisement
---