‘যা করেছি বেশ করেছি, যা করব বেশ করব!’- স্বস্তিকা

প্রশ্নটা সোজাসাপটাই ছিল স্বস্তিকার কাছে৷ আপনি কি বিতর্ক ভালবাসেন? নাকি বির্তক আপনাকে ভালবাসে৷ গলায় পরা রুদ্রাক্ষের মালায় হাত ঘুরিয়ে শুধু এক ফালি হেসেছিলেন আপাতত টলিপাড়ার বির্তকের কেন্দ্রে থাকা নায়িকা স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়৷ ঘাড়ের পিছন থেকে চুল টেনে নিয়ে বুকের সামনে ফেলে স্বস্তিকা জানালেন, ‘আমার সোজাসাপটা থাকাটাই মনে হয় কেউ সহ্য করতে পারে না৷ কিন্তু আমার তো এরকমই থাকতে ভাল লাগে!’ 

পরিচালক মৈনাক ভৌমিকের নতুন ছবি ‘টেক ওয়ান’-এর প্রধান চরিত্রে স্বস্তিকা৷ এক নায়িকার এমএমএস ক্লিপ ও তাঁর পরবর্তী নায়িকার জীবন নিয়েই তৈরি হয়েছে মৈনাকের এই ছবি৷ আবার ছবির গল্প অনেকটাই নাকি স্বস্তিকার জীবনী থেকে অনুপ্রাণিত৷ নায়িকা স্বস্তিকা কি বলছেন?

স্বস্তিকা: আমার মনে হয়, মৈনাক (পরিচালক মৈনাক ভৌমিক) এই ছবির অনুপ্রেরণা অনেক কিছু থেকেই পেয়েছে৷ কিউ-য়ের ‘গাণ্ডু’, পাওলির ‘ ছত্রাক’, ‘কসমিক সেক্স’৷তবে হ্যাঁ, যেহেতু ইন্ডাস্ট্রিতে আসার পর থেকে আমার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে একটু বেশিই উৎসাহী সবাই৷ আমাকে নিয়ে নানা বির্তক৷ সেটাও একটা অনুপ্রেরণার জায়গা হতে পারে৷ তবে গোটাটা নয়৷

- Advertisement -

সেই বির্তকে কি ‘টেক ওয়ান’ নতুন বারুদ যোগ করল?

স্বস্তিকা: একদম৷ টেক ওয়ানের ওই এমএমএস দৃশ্যের শ্যুটের গল্প প্রকাশ পাওয়ার পর হঠাৎই সমাজের চোখে আমি আবার ভিলেন৷ লোকে ভুলেই গিয়েছে, যে ওটা একটা ছবির শ্যুটিংয়ের জন্য শ্যুট করেছি৷ ওখানে আমি নয়, রয়েছে ‘টেক ওয়ান’-এর নায়িকা দোয়েল মিত্র৷ কিন্তু কাকে কি বোঝাব, সবাই এমন ভান করছে যেন স্বস্তিকার এমএমএস ক্লিপই প্রকাশ পেয়েছে৷

তবে এতে কিছু যায় আসে না আমার৷ আমার অভ্যাস হয়ে গিয়েছে৷

মানে৷ বির্তকে থাকার অভ্যাস করে ফেলেছেন?

স্বস্তিকা: ঠিক তাই৷ আমার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই৷ বহু মানুষকেই বলতে শুনেছি৷ স্বস্তিকার বর স্বস্তিকাকে দেখে না৷ একা একা মেয়ে নিয়ে থাকে৷ আরও কত কি৷

রাগ হয় না?

স্বস্তিকা: এখন আর হয় না৷ আমি কেয়ার করি না৷ আমি সোজসাপটা বলছি আমি যা করেছি, যা করব, বেশ করব! অভিনয়ের জন্য আমি সব কিছু করতে রাজি!

এই বিন্দাস মনোভাব নিয়ে টলিপাড়ায় চলতে অসুবিধা হবে না?

স্বস্তিকা: ওই যে বললাম৷ আমার কিছু যায় আসে না৷ ভাল অভিনয় করলে, আলাদা করে কিছু করার দরকার পরে না৷

প্রথমে ‘কদলিবালা’, তারপর ‘জাতিস্মর’, ‘টেক ওয়ান’ এরপর পার্থ সেনের ছবিতে মধ্যবয়স্কার চরিত্রে৷ হঠাৎ করে স্বস্তিকা একটু বেশিই এক্সপেরিমেন্টাল নয় কি?

স্বস্তিকা: আমি কখনই  ক্যালকুলেট করি না৷ এক্সপেরিমেন্ট করব বলেই ছবি বাছাই করি না৷ চিত্রনাট্য ভাল হলে লুফে নি৷ সেক্ষেত্রে বেশি ভাবি না৷ ‘টেক ওয়ান’-এ ক্ষেত্রেও তাই৷ মৈনাকের কাছ থেকে চিত্রনাট্য শোনার পরেই বললাম, কবে থেকে শ্যুটিং শুরু৷ আমি এরকমই৷

ছবির দোয়েলের সঙ্গে তো আপনার প্রচুর মিল৷ ছবিতে আপনি কতটা দোয়েল কতটা স্বস্তিকা?  

স্বস্তিকা: শুধু স্বস্তিকা নয়৷ আমি নিজের আশেপাশের জগত থেকেও অনেক কিছু চুরি করি৷ তারপর নিজের ভাবনা মেশাই৷ ব্যস, ছবির চরিত্র-র জন্য তৈরি হয়ে যাই৷

তা এই ছবির জন্য আশেপাশের জগত মানে কারা? পাওলি দাম?

স্বস্তিকা: কোনও একজন নয়৷ এটা বলতে পারি৷

ছবির দোয়েল মিত্র-র মতো ‘ছত্রাক’ ছবির পাওলি দামের ক্লিপটা প্রকাশ পেতেও তো সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছিল৷ অভিনেত্রী হিসেবে কীভাবে দেখেছিলেন ব্যাপারটা?

স্বস্তিকা: আমি সব সময়ই এই হিপোক্রেসিকে অপছন্দ করি৷ দেখবও আবার সমালোচনাও করব৷ যা করেছিল পাওলি, অভিনয়ের জন্যই করেছিল৷ আর শুধু অভিনেত্রী কেন? আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক অভিনেত্রীরা রীতিমতো গসিপ বানিয়ে ফেলেছিল বিষয়টিকে৷ একে অপরকে ফোন করে জিজ্ঞেস করছিল, ক্লিপটা দেখেছে কিনা৷ আই হেট দিজ কাইন্ড অফ পিপল৷ জানি আমাকে নিয়েই এ সব হয়৷ ওই যে বললাম, আমি যা করেছি বেশ করেছি৷

ছবিতে মেয়ের সঙ্গে অভিনয়, মেয়ে কি বলছে?

স্বস্তিকা: ওরে বাবা, ওতো ভীষণ এক্সাইটেড৷ মৈনাকের সঙ্গে খুব বন্ধুত্ব৷ আমি শুধু ওকে বলেছিলাম৷ তুই যেমন ক্যামেরার সামনে তেমনই থাকবি৷ আলাদা করে কিছু করতে হবে না৷

মৈনাকের সঙ্গে বেশ কয়েকটা কাজ করলেন৷ পরিচালক হিসেবে মৈনাক কেমন?

স্বস্তিকা: আমি মৈনাককে পরিচালক হিসেবে দেখিই না৷ ও অনেক বেশি বন্ধুর মতো আমার৷ ওঁর সঙ্গে সব কথাই শেয়ার করা যায়৷ একটু বিতর্ক উসকে দিতে বলতেই পারি, শারীরিক সম্পর্ক ছাড়া মৈনাকের সঙ্গে সব সম্পর্কই আছে আমার (হেসে ফেলে)৷

আপনার কি মনে হয়, এই ধরণের বিষয় নিয়ে ছবি তৈরি হলে সমাজ মেয়েদের নিয়ে কম সমালোচনা করবে?

স্বস্তিকা: উত্তর দেওয়াটা মুশকিল! সমাজে নারীরা ঠিক কোন জায়গায় রয়েছে, সেটা কারা মাপছে? আর এই জায়গা মাপামাপির কি আছে৷ নারীদের তাঁদের মতই ছেড়ে দিন৷ পারলে কম সমালোচনা করুন৷ এটা ছাড়া আমার সত্যিই বলার কিছু নেই৷ তবে এই ধরণের ছবি হলে, অন্তত অভিনেত্রীরা যে সিনেপর্দায় অভিনয় করছে, ব্যক্তিগত কিছু নয় সেটা যদি পরিস্কার হয়, তাহলে সেখানেই সাফল্য৷

আর বিতর্ক?

স্বস্তিকা: স্বস্তিকাকে ভালবাসে, কিম্বা স্বস্তিকা ভালবাসে ! (হেসে ফেলে)

 

Advertisement ---
---
-----