স্টাফ রিপোর্টার, চুঁচুড়া: ফের রাজ্যে সোয়াইন ফ্লু বা এইচ১এন১ ভাইরাসে আক্রান্ত এক মহিলা৷ অকুস্থল এবার হুগলির ধনিয়াখালি এলাকা৷ পরিবার সূত্রে খবর, দীর্ঘদিন ধরে জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন ওই মহিলা৷ স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করার পর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে প্রথমে তাঁকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ এবং পরে বেলেঘাটা হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷মাত্র সাতদিন আগেই চন্দননগরে মারণ রোগ এইচ১এন১ ভাইরাসে মারা গিয়েছিলেন রূপালি সাহা নামের এক মহিলা৷ তারপর ফের জেলায় সোয়াইন ফ্লু ভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রশ্নচিহ্নের মুখে জেলার স্বাস্থ্য পরিষেবা৷

সম্প্রতি দক্ষিণ কলকাতার এক রোগিণীর রক্তে মেলে এইচ১এন১ ভাইরাস৷ এছাড়া গত বছরের সেপ্টেম্বরেও কলকাতায় এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হন তিনজন৷ সেবার সোয়াইন ফ্লু ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ঝাড়খণ্ডের এক বাসিন্দা মারা যান৷ বর্তমানে কলকাতায় সোয়াইন ফ্লু’তে আক্রান্ত রয়েছেন মোট পাঁচজন৷পাশাপাশি রাজ্যে মোট রোগীর সংখ্যা এই মুহুর্তে প্রায় ৩২৷ রোগীরা রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে ভরতি রয়েছেন৷ স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে জারি করা হয়েছে সতর্কবার্তা৷

Advertisement

চিনের মতো এদেশেও এইচ১এন১ রোগটি ২০০৯ সালে ছড়াতে শুরু করে। সাধারণত শুয়োর থেকেই এই রোগের প্রাদুর্ভাব বলে তা সোয়াইন ফ্লু নামে পরিচিত৷হাঁচি-কাশির মাধ্যমেও ছড়ায় এই রোগ। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর, ২০১০ সালে প্রথম এ রাজ্যের প্রায় ৬৩ জন আক্রান্ত হন এই ভাইরাসে। মারা যান ৫ জন। ২০১৩ সালের এপ্রিলে ৪০ জনের বেশি মানুষ আক্রান্ত হন৷মৃত্যু হয় তিনজনের।স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রে খবর, সোয়াইন ফ্লুতে আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত দেশজুড়ে মারা গিয়েছেন দু’শোরও বেশি মানুষ।

----
--