কবিগুরুর কথায় ও গুলজারের সুরে, এ এক অন্য সৃষ্টি

মুম্বই: কবিগুরুর জন্যই অনায়াসে সৃষ্টি হয় এমনই অনেক দৃষ্টান্ত৷ এমনটাই ফের প্রমান করলেন গুলজার৷ তাঁর কথায়,“সব ছেড়ে বাংলা শিখেছি কেবলমাত্র রবীন্দ্রনাথকে অনুবাদ করার জন্যই৷” সম্প্রতি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বেশ কিছু কবিতার হিন্দি অনুবাদ করলেন গুলজার এবং তা গান হিসেবে অ্যালবামবন্দী করল ‘সারেগামা’ ৷ গতকাল এই মিউজিক অর্গানাইজেশনের হাত ধরেই প্রকাশ পেল নতুন অ্যালবাম ‘গুলজার ইন কনভারসেশন উইথ টেগোর’৷ এই অ্যালবামে গান গেয়েছেন শ্রেয়া ঘোষাল এবং শান৷ সঙ্গীত পরিচালনায় শান্তনু মৈত্র৷ তিনি রবীন্দ্রসংগীতের প্রচলিত শৈলীর সঙ্গে মিশিয়ে দিয়েছেন আধুনিকতার ছোঁয়া৷ অ্যালবামে গানের সঙ্গে ব্যবহার করা হয়েছে গিটার, গ্র্যান্ড পিয়ানো, ম্যান্ডোলিন-এর মতো অ্যাকুয়াস্টিক বাদ্যযন্ত্রও৷

বহুদিন আগেই আড্ডার ছলে বিশ্বকবির গান নিয়ে কাজ করার কথা তুলেছিলেন গুলজার৷ সেখানেই শান্তনু মৈত্রসহ উপস্থিত ছিলেন শ্রেয়া ঘোষাল এবং শানও৷ আর সেখান থেকেই এই কাজের সূত্রপাত৷ শ্রেয়া এবং শান দুজনে এর আগেও রবীন্দ্রসংগীত গাইলেও, এমন একটা প্রোজেক্টে এই প্রথম কাজ করলেন তাঁরা৷ তাই এমন একটা প্রোজেক্টে কাজ করে বেশ খুশি প্রত্যেকেই৷ গুলজারের কথায় ” শুধু অ্যালবাম নয়, প্রতিটি মানুষের দৈনন্দিন জীবনেই থাকা উচিৎ কবিগুরুর নাম৷” তিনি আরও বলেন “আগে তাঁর লেখা হিন্দিতে অনুবাদ করতাম, ইংরেজি-অনুদিত লেখা থেকে৷ তখনই মনে হয়েছিল তাঁর লেখার অন্তর্নিহিত সৌন্দর্য আমি ঠিক ধরতে পারছি না ইংরেজি থেকে৷ তাই বাংলা শেখা শুরু করলাম৷ ধীরে ধীরে তিনি যেন আমাকে গ্রাস করে নিলেন৷ সিনেমা তৈরি ছেড়ে দিলাম৷ রাত-দিন শুধু বাংলা শিখতে শুরু করলাম তাঁকে ঠিকভাবে হিন্দিতে অনুবাদ করব বলে৷”

রবীন্দ্রনাথের মোট সাতটি কবিতা বাংলা থেকে হিন্দিতে ভাষান্তরিত করেছেন গুলজার৷ নিউ জেনারেশনের কাছে কবিগুরুর কবিতাকে তুলে ধরাই ‘গুলজার ইন কনভারসেশন উইথ টেগোর’- এর মূল উদ্দেশ্য৷ গুলজারের সৃষ্টি বর্তমান প্রজন্মের কাছে, কবির সৃষ্টিকে নতুনভাবে তুলে ধরেছে, তা বলাই বাহুল্য৷

Advertisement
---