হেলমেট খুলুন তেল নিন

স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: দুষ্কৃতীদের গতিবিধির উপর নজর রাখতে জলপাইগুড়ি পুলিশের এবার নতুন উদ্যোগ৷ হেলমেট খুলুন, পেট্রল ভরুন৷ শীঘ্রই লাগু হচ্ছে শহরে। তবে এই উদ্যোগে ছাড় মিলবে হাফ হেলমেট আরোহীদের।

স্লোগানে সংযোজন ঘটাল জলপাইগুড়ি জেলা পুলিশ। এতদিন বাইক আরোহীদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে পেট্রল পাম্পের গায়ে লেখা থাকত ‘নো হেলমেট নো পেট্রল’। এখন থেকে পেট্রল পেতে হলে হেলমেট তো লাগবেই৷ নতুন সংযোজন, মুখ ঢাকা হেলমেট হলে হেলমেট খুলে মুখ দেখাতে হবে সিসিটিভি ক্যামেরায়। চুরি ছিনতাই অপহরণের মতো অপরাধ দমন করতেই পুলিশের এই নতুন উদ্যোগ।

- Advertisement -

ইতিমধ্যেই পেট্রল পাম্প মালিক, স্বর্ণ ব্যবসায়ী, ব্যবসায়ী সংগঠন এবং ব্যাংক প্রতিনিধিদের সঙ্গে পুলিশের পক্ষ থেকে বৈঠক হয়৷ সেখানে পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয় অপরাধীদের চিহ্নিত করতে সিসিটিভির ছবিকে যথেষ্টই গুরুত্ব দিচ্ছেন তারা। কারণ ছবি দেখে দ্রুত অপরাধীকে চিনে নেওয়া যায়।

গত শনিবার এশিয়ার্ডে সোনা জয়ী স্বপ্না বর্মনের মায়ের গলার হার ছিনতাই হয়। পুলিশ জানায়, একটি পেট্রল পাম্পের সিসিটিভির ফুটেজের সৌজন্যে দ্রুত অপরাধীকে চিহ্নিত করা গিয়েছিল৷ আর তার জন্যই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন তারা।

জলপাইগুড়ির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইন্দিরা মুখোপাধ্যায় জানান, পুজোর মুখে শহরাঞ্চলে ক্রাইম, বিশেষ করে চুরি ছিনতাইয়ের মতো ঘটনা বেড়ে যায়। অপরাধ রুখতে কী কী করনীয় সেই সম্পর্কে আলোচনা হয় ওই বৈঠকে। এই ক্ষেত্রে দ্রুত অপরাধীকে চিহ্নিত করার জন্য সিসিটিভি একটা বড় ভূমিকা পালন করতে পারে।

কোথায় কীভাবে ক্যামেরা লাগালে অপরাধীকে সহজেই চিনে নেওয়া যাবে সেই সম্পর্কে সকলকে অবগত করেন তারা। সেই সঙ্গে পালানোর জন্য অনেক সময় অপরাধীরা পেট্রল পাম্পে তেল ভরতে দাঁড়ায়। সেই সময় মুখ ঢাকা হেলমেটের আড়ালে অপরাধীরা নিজেদের লুকিয়ে রাখে৷ তাই আর যাতে মুখ আড়াল করতে না পারে তার জন্য পেট্রল পাম্প মালিকদের হেলমেট খুলিয়ে তার পরই পেট্রল দেওয়ার পরামর্শ দেয় পুলিশ।

Advertisement
---