ভরসন্ধ্যায় বাড়ির সামনে বুলেট ভরা দেশলাই বাক্স পেলেন শিক্ষক

স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: আপাত নিরীহ একটি দেশলাই বাক্স৷ ভর সন্ধ্যায় পড়ে দরজার সামনে৷ তার ভিতর থেকেই মিলল একটি বুলেট ও একটি মেমরি কার্ড৷ সঙ্গে এল খুনের হুমকি৷ ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি প্রকাশ করে দেওয়ার ব্ল্যাকমেলিং৷ বাঁচতে হলে ৫০ হাজার টাকা দিতে হবে৷

যা মুহূর্তের মধ্যে আতঙ্কের অন্ধকারে ঠেলে দেয় বিপুল বিশ্বাসকে৷ তাই সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশের দ্বারস্থ হন বাঁকুড়ার সোনামুখীর ধুলাই উচ্চবিদ্যালয়ের ওই শিক্ষক৷ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন৷

আরও পড়ুন: আমন্ত্রণ পেলে ‘প্রধানমন্ত্রী’ ইমরানের শপথে যাব: কপিল

আর তদন্তে নেমেই চক্ষুচড়কগাছ পুলিশের৷ ফোন নম্বর সূত্র ধরে যে দু’জনকে পুলিশ ধরেছে, তারা নাবালক৷ স্কুল ছাত্র৷ একজন পড়ে নবম শ্রেণিতে৷ দ্বিতীয় জন একাদশ শ্রেণির ছাত্র৷ দু’জনেই ওই শিক্ষকের কাছে ইংরেজির টিউশন নিত৷

পুলিশ জানিয়েছে, বিপুল বিশ্বাস নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জ থানার ধরমপুর গ্রামের বাসিন্দা৷ তবে কর্মসূত্রে তিনি সোনামুখী শহরের দশ নম্বর ওয়ার্ডে থাকেন৷ বুধবার সন্ধ্যায় ওই ভাড়াবাড়ির সামনেই দেশলাই বাক্সটি পড়েছিল৷ একটি অচেনা নম্বর থেকে ফোন করে সেকথা জানানো হয় ওই শিক্ষককে৷

আরও পড়ুন: ১০ লক্ষ টাকার সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করেছেন অখিলেশ

তাঁর পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই শিক্ষকের কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করা হয়৷ না দিলে খুনের হুমকি দেওয়া হয়৷ একই সঙ্গে বলা হয়, ওই ভাড়াবাড়ির বাথরুমে আগে থেকেই একটা ক্যামেরা লাগানো রয়েছে৷ সেই ক্যামেরায় ধরা পড়েছে বিপুলবাবুর স্ত্রীর কিছু ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি৷ টাকা না দিলে সেই সব ছবিও প্রকাশ করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়৷

এর পর ওই শিক্ষক দেশলাই বাক্সটি খুলে দেখেন ভিতরে রয়েছে একটি বুলেট আর একটি মেমরি কার্ড৷ ওই কার্ডটি মোবাইলে ইনসার্ট করতেই দেখা যায়, তাতে কয়েকটি একটি বন্দুক, একটি ছুরি ও কয়েক রাউন্ড গুলির ছবি আছে। এছাড়াও রয়েছে একটি অডিও৷ সেই অডিওতে গুলি চালানোর শব্দ রয়েছে৷

আরও পড়ুন: মুসলিম যুবককে দাড়ি কাটতে বাধ্য করায় গ্রেফতার ৩

পুলিশ এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি৷ তবে তাদের একটি সূত্র জানাচ্ছে, অপরাধের ধরন দেখেই তাদের এটাকে কাঁচা হাতের কাজ বলেই মনে হয়েছিল৷ তাই প্রথমেই ওই ফোনের সূত্র ধরে তদন্ত শুরু হয়৷ আর তাতেই উঠে আসল সত্য৷

Advertisement
----
-----