স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে উত্তেজনা পূর্ব মেদিনীপুরে দিঘা থেকে উদরপুর যাওয়ার পথে দত্তপুর গ্রামে৷ বিধায়ক অখিল গিরিকে ধরে বিক্ষোভ উচ্ছেদ হওয়া পাঁচটি পরিবার সহ গ্রামবাসীদের৷ পরে সরকারি প্রকল্পে ওই পাঁচ পরিবারকে ঘর তৈরি করে দেওয়ার আশ্বাসে বিক্ষোভ উঠে যায়৷ রাস্তা সম্প্রসারণের জন্য শুরু হয় ঘর ভাঙার কাজ৷

Advertisement

জানা গিয়েছে, দিঘা থেকে উদয়পুর যাওয়ার রাস্তা সম্প্রসারণের জন্য দত্তপুর গ্রামের জমি আগেই কিনে নিয়েছে সরকার৷ নিয়ম মেনে জমিহারাদের দেওয়া হয়েচে ক্ষতিপুরণ৷ তবুও সেই জমিতেই বসবাস করছিলেন পদ্মলোচন বেরা, টুনা বেরা, অশোক বেরা, নিখিল মন্ডল ও পিন্টু বেরার পরিবার। এদিনই ছিল ওই পরিবারগুলির উঠে যাওয়ার শেষ দিন।

আরও পড়ুন: বালুরঘাট হিন্দি স্কুলের ভবিষ্যৎ নিয়ে বাড়ছে অনিশ্চয়তা

শুক্রবার সকালে জমি অধিগ্রহণের জন্য গ্রামে পৌঁছয় দিঘা শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের কর্মীরা৷ গ্রামবাসীদের বাদার মুকে পড়তে হয় তাদের৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান রামনগরের বিধায়ক অখিল গিরি৷ তাঁকে ঘিরেও শুরু হয় বিক্ষোভ৷

বিক্ষোভকারীদের দাবি, দুই প্রজন্ম ধরে এখানেই বসবাস জমিহারা পাঁচটি পরিবারের৷ এই মুহুর্তে উচ্ছেদ করে দিলে পথে বসা ছাড়া আর কোন উপায় থাকবে না৷ ঘরহারাদের বসবাসের জন্য মাথার উপর ছাদের আর্জি জানাতে থাকেন তারা৷ পরে বিধায়ক ও দিঘা শংকরপুর উন্নয়নপুর পর্যদের সদস্য অখিল গিরি বলেন, ‘‘রাজ্য সরকারের ‘আমার বাংলা গৃহ’ প্রকল্পে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত জমিহারা ওই পাঁচ পরিবারকে ঘর বানিয়ে দেবে৷’’ বিধায়কের আশ্বাস পেয়ে উঠে যায় বিক্ষোভ৷ শুরু হয় ঘর ভাঙার কাজ৷

----
--