হাফিজ সইদ সহ ১২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট ফাইল NIA-র

নয়াদিল্লি : লস্কর-ই-তইবা প্রধান হাফিজ সইদ ও হিজাব-উল-মুজাহিদিন প্রধান সালাউদ্দিন সহ মোট ১২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট ফাইল করেছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা বা NIA৷ সন্ত্রাসবাদে আর্থিক সাহায্য করার জন্য এদের বিরুদ্ধে চার্জশিট ফাইল করেছে তারা৷

কাশ্মীর উপত্যকায় সন্ত্রাসবাদ ক্রমশ বাড়ছে৷ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের জন্য টাকা আসছে সীমান্তের ওপার থেকে৷ সেটি করছে লস্কর-ই-তইবা প্রধান হাফিজ সইদ ও হিজাব-উল-মুজাহিদিন প্রধান সালাউদ্দিন সহ আরও অনেক সন্ত্রাসবাদী সংস্থা৷ সেই কারণেই ১ হাজার ২৭৯ পাতার একটি চার্জশিট তৈরি করেছে NIA৷ আদালতে এই চার্জশিট পেশ করা হয়েছে৷

এই মামলার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে ইতিমধ্যেই ১০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ তাদের বিচার বিভাগীয় হেপাজতে রাখা হয়েছে৷ সন্ত্রাসবাদ বিরোধী আইন অনুসারে ৬ মাসের মধ্যে অভিযোগকারীর পক্ষ থেকে চার্জশিট ফাইল করতে হয়৷ কিন্তু এই মামলার ক্ষেত্রে জামিন পাওয়া সম্ভব হয়নি৷

NIA সূত্রে জানা গিয়েছে, মামলার জন্য তারা যথেষ্ট প্রমাণ ও তথ্য সংগ্রহ করেছে৷ এখনও পর্যন্ত ৬০ টি জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে ৯৫০টি তথ্য আবিষ্কার করেছে তারা৷ সেই সঙ্গে রয়েছে ৩০০ প্রত্যক্ষদর্শীর বয়ান৷ এখনও পর্যন্ত NIA যাদের গ্রেফতার করেছে, তারা হল- আলতাফ আহমেদ শাহ ওরফে আলতাফ ফান্টুশ (সৈয়দ আলি শাহ গিলানির জামাই), মিরওয়াইজ উমের ফারুক চালিত হুরিয়ত কনফারেন্সের শাহিদ-উল-ইসলাম, গিলানি পরিচালিত হুরিয়ত আয়াজ আকবর ও বিচ্ছিন্নতাবাদী নায়েম কান, বসির ভাট ওরফে পীর সইফুল্লা ও রাজা মেহেরাজুদ্দিন কালওয়াল৷

ব্যবসায়ী জাহুর আহমেদ ওয়াতালিকেও গ্রেফতার করেছে NIA৷ ২০১৬ সালে হিজাব-উল-মুজাহিদিনের বুরহান ওয়ানিকে খতম করার পর কাশ্মীরে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের হয়৷ সেখানে ছিলেন জাহুর আহমেদ৷ JKLF-এর প্রাক্তন প্রধান বিট্টা কারাটে, ফোটো জার্নালিস্ট কামরান ইউসুফ ও জাভেদ আহমেদ ভাটের নাম রয়েছে NIA-র চার্জশিটে৷

এই সংক্রান্ত তখ্য প্রমাণ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে পাঠানো হয়েছে৷ সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কিত কাজে টাকা দেওয়ার অভিযোগের কথা চার্জশিটে লিপিবদ্ধ করা হয়েছে৷

----
-----