পার্কের বেঞ্চেই দুই শরীরকে এক করলেন ছাত্র-শিক্ষিকা!

যৌনলালসা কোন পর্যায়ে পৌঁছলে মানুষ এই পদক্ষেপ নিতে পারে, তা আন্দাজ করা একটু হলেও কঠিন৷ আর এমন আচরণ যদি হয় কোনও শিক্ষক বা শিক্ষিকার তাহলে যেন কথা হারিয়ে যায়৷ তরুন সমাজ যাদের হাত ধরে, যাদের আদর্শে এগিয়ে যাবে, আরও উনন্ততর সমাজ গড়ার লক্ষ্যে, সেই পথই আজ বিপন্ন৷ টেক্সাসে ঘটে গিয়েছে এমনই এক ঘটনা যা পড়লে শিউরে উঠবেন আপনি৷

মজারচ্ছলে হাসি-ঠাট্টা-কথা-বার্তা, আর সেই মজাই গড়িয়ে গেল যৌনাকাঙ্খায়৷ আর তা এতটা প্রবল যে নিজের ছাত্রকেও ছাড়লেন না এক অঙ্কের শিক্ষিকা৷ প্রথম প্রথম সেক্স-চ্যাট, স্ন্যাপ চ্যাটে বিষয়টি আবদ্ধ থাকলেও, পরবর্তী ক্ষেত্রে সব বাঁধন খুলে গিয়ে, এ এক ভয়ঙ্কর রুপ নেয়৷ নিজের প্রেমিক ফ্ল্যাটে না থাকার সুযোগে এই শিক্ষিকা ডেকে নেয় তার ১৬বছর বয়সী ছাত্রকে৷ আর তারপরেই শুরু আদিমখেলা৷

শুধু ফাঁকা অ্যাপার্টমেন্টেই নয়৷ কামনাবাসনা, খোলা আকাশের নীচে, পার্কের বেঞ্চেও এক করে তোলে এই দুই শরীরকে৷ স্কুলের চাকরি আগেই ছেড়েছিলেন৷ ছাত্রে সঙ্গে শরীর শরীর খেলার নেশায় নিজের বিয়েও আটকে দেন৷ স্মার্ট লাইফে, স্মার্ট সেক্সে মত্ত এই শিক্ষিকা ইন্টারনেটে বারবার এই ছাত্রকে নিজের নগ্ন সেলফি পাঠাতে থাকেন৷ তবে এমন ঘটনা তো বেশিদিন চাপা থাকে না৷ আর হল তাইই৷ ছাত্রের সঙ্গে ফোনে তার শিক্ষিকার নিষিদ্ধ-বিতর্কিত কথা শুনে ফেলে অন্য এজন৷ আর তারপর যা হোয়ার তাই হয়৷ নাটকের শেষ অঙ্কে, শিক্ষিকা গ্রেফতার হন৷ পরে অবশ্য জরিমানা দিয়ে বেল পান৷ তবে তার ওপর রয়েছে কড়া নজরদারি৷ অবশ্য শুধু তার ওপরই নয়, তার ইন্টারনেট ব্যবহারেও পড়েছে কোপ৷

Advertisement ---
---
-----