অভিযুক্ত অসুস্থ, তাই বিচার চলল আদালতের বাইরে

স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: আসামী গুরুতর অসুস্থ। সোজা হয়ে দাঁড়ানোর ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছে। কিন্তু খুনের মামলার শুনানি ছিল মঙ্গলবার। তাই অসুস্থ থাকায় অভিযুক্তকে প্রিজন ভ্যানে করে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ কিন্তু তাকে আদালত কক্ষের ভিতরে নিয়ে যাওয়া যাচ্ছিল না। তাই আদালতের বাইরে এসেই বিচার প্রক্রিয়া চালালেন পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথি আদালতের বিচারক অলি বিশ্বাস সরকার।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২ অগাস্ট বাড়িতে মদ্যপ অবস্থায় এসে স্ত্রী ও ছেলেকে বেধড়ক মারধর করছিল তপন পাত্র। সেই সময় ছেলেকে বাধা দিতে আসেন তাঁর বাবা পরমেশ্বর পাত্র। তখনই রাগের বশে বাবার মাথায় ভারী নোড়া দিয়ে আঘাত করে অভিযুক্ত। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর।

আরও পড়ুন: নতুন সেতু নির্মাণের দাবিতে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

- Advertisement -

বাবাকে খুনের মামলায় দীর্ঘদিন ধরেই পুলিশ হেফাজতে রয়েছে রামনগরের সাবিত্রাপুরের বাসিন্দা তপন পাত্র। তবে বাবাকে খুনের ঘটনার সময় গ্রামবাসীদের গণধোলাইয়ের জেরে কোমর ভেঙে গিয়েছে অভিযুক্তের। বেশ কয়েকবছর ধরে চলার ক্ষমতা নেই তাঁর। মঙ্গলবার তাঁকে স্ট্রেচারে শুইয়ে আলিপুর জেল থেকে কাঁথিতে নিয়ে আসা হয়।

প্রিজন ভ্যানের নীচে দাঁড়িয়েই এদিন আসামীর বক্তব্য শোনেন বিচারক। সেখানেই তখন হাজির ছিল সরকারি ও আসামী পক্ষের আইনজীবীরাও। আসামী পক্ষের আইনজীবীর মাধ্যমে বিচারককে নিজের বক্তব্য জানান অভিযুক্ত তপন। সে স্বীকার করে নেন, বাবার মাথায় ভারী নোড়া দিয়ে রাগের বশে মেরেছিলেন। তবে বাবা মারা গিয়েছিল কিনা তা তাঁর জানা নেই৷

Advertisement ---
---
-----