অধীরের গড়ে রাহুলের দলকে টেক্কা দিল বিজেপি

স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: ইঙ্গিত মিলেছিল পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন দাখিল পর্বেই৷ শাসক দলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ থাকলেও অধীর গড়েই তা প্রতিহত করতে ব্যর্থ হয় খোদ কংগ্রেস নেতা, কর্মীরা৷ এবার পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন পর্বে কংগ্রেসকে টেক্কা দিয়ে মুর্শিদাবাদে পাপড়ি মেলল পদ্ম৷ বেলডাঙ্গার মহুলা এক নম্বর ও শক্তিপুরের সাটুই চৌরিগাছা গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করল বিজেপি৷

পঞ্চায়েত নির্বাচনেই স্পষ্ট রাজ্যের দ্বিতীয় শক্তি এখন গেরুয়া বাহিনী৷ রামেরা পুষ্ট হয়েছে বামেদের ভোটে৷ শক্তি কমতে কমতে কংগ্রেস প্রায় সাইন বোর্ড৷ চার দিকে শাসক দলের রমরা৷ এই অবস্থাতেও নবাবের রাজ্যে বিজেপির দুটি গ্রাম পঞ্চায়েত দখল করাকে বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: মমতার সুর অধীরের গলায়

মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদের বেলডাঙ্গার মহুলা এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করে বিজেপি। এই পঞ্চায়েতে রয়েছে মোট ১৮ টি আসন। ভোটে ১৪ টি আসন পায় বিজেপি এবং শাসক দলের দখলে যায় বাকি ৪টি আসন। স্বাভাবিকভাবেই সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে পঞ্চায়েতে বোর্ড দখল করে বিজেপি৷ প্রধান নির্বাচিত হন বিজেপির অনুপ সাহা।

আরও পড়ুন: সভাপতি অধীর চৌধুরীর সামনেই মারামারিতে জড়ালেন ছাত্রনেতারা

পাশাপাশি এদিন পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন হয় শক্তিপুরের সাটুই চৌরিগাছা গ্রাম পঞ্চায়েতেও। ১৭ আসন বিশিষ্ট্য এই পঞ্চায়েতে বিজেপি দখল করে ১১ টি আসন৷ ৬টি আসন পায় তৃণমূল প্রার্থীরা। মঙ্গলবার এই পঞ্চায়েতে প্রধান নির্বাচিত হন বিজেপির সুব্রত সিনহা।

বোর্ড গঠনের পরই কমলা আবীর খেলায় মেতে ওঠেন গেরুয়া দলের কর্মী, সমর্থকরা৷ শাসকের তোখ রাভানি না থাকলে পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি মুর্শিদাবাদে আরও ভাল ফল করতে বলে দাবি করেন দলের জেলা সভাপতি৷

Advertisement
---
-----