লোকসভায় তৃণমূলের স্বপ্ন পূরণ হবে না, দাবি বিজেপি নেতার

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: পঞ্চায়েতে রাজ্য পুলিশ ও নিজেদের লেঠেল বাহিনীকে কাজে লাগিয়ে সন্ত্রাস করে ক্ষমতা দখল করেছে তৃণমূল৷ কিন্তু লোকসভায় ওরা তা করতে পারবে না৷

কারণ, লোকসভা ভোট হবে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে৷ তাই লোকসভায় শাসকদলের স্বপ্ন পূরণ হবে না৷ মালদহে শুভেন্দু অধিকারির প্রতিক্রিয়ার পাল্টা হিসেবে এভাবেই কড়া প্রতিক্রিয়া জানালেন বিজেপির রাজ্য নেতা বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী৷

আরও পড়ুন: ছাত্রীকে ধর্ষণ-খুনে গ্রেফতার মূল অভিযুক্ত

এদিন তিনি বলেন, ‘‘সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত ভোটে রাজ্য পুলিশকে ব্যবহার করে সন্ত্রাস করে ক্ষমতা দখল করেছে তৃণমূল৷ কিন্তু পঞ্চায়েত নির্বাচনের কৌশলে লোকসভা ভোট হবে বলে শাসকদল যদি ভেবে থাকে তাহলে ভুল করছেন। কারণ, কেন্দ্রীয় কমিশনের অধীনে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট হবে। শাসকদলের এসপি বা জেলাশাসকেরা কিছু করতে পারবেন না৷ ফলে অবাধে ভোট হলে লোকসভায় শাসকদলের স্বপ্ন পূরণ হবে না৷’’

একই সঙ্গে রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী তথা শাসকদলের মালদহের পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারীকে তীব্র আক্রমণ করে বিজেপির রাজ্য নেতা বলেন, ‘‘সন্ত্রাস করেও যেসব জায়গায় জিততে পারেনি শাসকদল সেখানে ভয় দেখিয়ে ও টাকার প্রলোভন দেখিয়ে ওরা নির্বাচিত বিরোধী সদস্যদের যে নিজেদের দিকে টানছে তা শুভেন্দুবাবুর বক্তব্য থেকেই স্পষ্ট৷ সেই কারণেই আমরা আমাদের নির্বাচিত পঞ্চায়েত সদস্যদের আপাতত অন্য রাজ্যে নিয়ে গিয়ে রেখেছি৷ সঠিক সময়ে তাঁদের এলাকায় আনা হবে৷’’

আরও পড়ুন: হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ছবি শেয়ার! এরপরই হাড়হিম করা ঘটনা

প্রসঙ্গত ভোট পরর্বতী সাংগঠনিক বৈঠক করতে মঙ্গলবার মালদহে আসেন শুভেন্দু অধিকারী৷ সেখানে বিজেপি, কংগ্রেস ও সিপিএমের নির্বাচিত ৩০ জন পঞ্চায়েত সদস্য তাঁর হাত থেকে দলীয় পতাকা তুলে নেন৷ ৭০ শতাংশ পঞ্চায়েত শাসকদল দখল করলেও মালদহের ২০ শতাংশ পঞ্চায়েত কার্যত ত্রিশঙ্কু হয়ে রয়েছে৷ এই অবস্থায় বিরোধীদের জয়ী সদস্যদের নিজেদের দিকে এনে্ সংশ্লিষ্ট পঞ্চায়েতগুলি দখল করতে মরিয়া শাসকদল৷

শুভেন্দুবাবু সরাসরি সেকথা জানিয়েও দেন৷ তিনি দাবি করেন, ‘‘জেলার যে পঞ্চায়েতগুলি ত্রিশঙ্কু হয়ে রয়েছে সেগুলি আমরাই দখল করব৷ এখনও হাতে সময় রয়েছে৷ বিরোধীদের অনেকেই আমাদের সঙ্গে যোগাযোগও করছেন৷ মুর্শিদাবাদের কায়দায় মালদহকেও আমরা বিরোধী শূন্য করে দেব৷’’

আরও পড়ুন: চলতি মাসেই পুরুলিয়া যাচ্ছেন অমিত শাহ

প্রয়াত প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ গনিখান চৌধুরীর গড়ে শুভেন্দুর এহেন হুঁশিয়ারির জেরে জেলার রাজনৈতিক মহলে কড়া প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে৷ ইতিমধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন জেলার কংগ্রেস নেত্রী তথা প্রয়াত গনিখান চৌধুরীর ভাগ্নি মৌসম বেনজির নূরও৷