ছিন্ন বিছিন্ন অবস্থায় উদ্ধার বেসরকারি ব্যাংক কর্মীর দেহ

স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: শরীর থেকে মাথা আলাদা অবস্থায় বস্তাবন্দি দেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল হাওড়ার ডোমজুড়ের মাকড়দহ রাঘবপুরে৷ প্রথমে তাঁর পরিচয় জানা যায়নি৷ কিন্তু পরে পুলিশের তৎপরতায় তাঁর পরিচয় জানা যায়৷ পুলিশ জানিয়েছে, ওই মৃত যুবকের নাম পার্থ চক্রবর্তী (২৭)৷ তিনি সলপ এলাকার একটি বেসরকারি ব্যাংকের লোন রিকভারি এজেন্ট হিসেবে কাজ করতেন। তাঁর বাড়ি নদীয়ার চাকদায়৷ এখানে তিনি কাজের সূত্রে একটি মেসে থাকতেন৷

এলাকার এক স্থানীয় বাসিন্দা কৃষ্ণা দাস প্রথমে ওই বস্তাটি দেখতে পায়৷ তাঁর ওই বস্তাটি দেখে সন্দেহ৷ এরপর তিনি পুলিশকে খবর দেয়৷ ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে বস্তাটি খোলেন৷ পুলিশ বস্তা খুলে দেখেন তাঁর শরীরের উপরের অংশ নেই৷ দেহ থেকে মাথা ও হাত আলাদা করাছিল৷ পুলিশ প্রথমে তাঁর পরিচয় জানতে পারে নি৷ পরে তাঁর বন্ধুরা তাঁর দেহ সনাক্ত করেন৷

পার্থর রুমমেট শঙ্খদীপ মান্না জানান, প্রতিদিনের মত বুধবারও লোন রিকভারির কাজে বেরিয়েছিলেন তিনি৷ এদিন তাঁর মোট পাঁচটি গ্রুপ থেকে টাকা কালেকশন করে আনার কথা ছিল৷ এরপর রাতে তিনি মেসে ফিরে আসেন নি৷ তাই ডোমজুড় থানায় তাঁর নিখোঁজ হওয়ার কথা জানান তাঁর রুমমেটরা৷ যখন তিনি চার নম্বর কালেকশন করে পাঁচ নম্বর গ্রুপে টাকা কালেকশন করতে যাচ্ছিলেন৷ তখনই মাকড়দহ রাঘবপুরের কাছে এই ঘটনাটি ঘটে।

- Advertisement -

তিনি আরও জানান, পার্থ বাবুর কাছে চার লক্ষ টাকা ছিল৷ টাকার জন্য কোনও দুষ্কৃতী দল তাঁকে নৃশংসভাবে খুন করেছে৷ পার্থর কোনও শত্রুতা ছিল না বলে তিনি জানান৷ খুব নৃশংসভাবে পার্থকে খুন করা হয়েছে। অভিযুক্তদের শাস্তির কঠর দাবি করেছে শঙ্খদীপ৷

ডোমজুড় থানার ওসি জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। এখনও কেউ ধরা পড়েনি।

Advertisement ---
---
-----