নন্দীগ্রামের জওয়ানের মৃত্যু অস্বাভাবিক বলছে পরিবার

স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া: নন্দীগ্রামের জওয়ানের অস্বাভাবিক মৃত্যু। সঠিক তদন্তের আর্জি পরিবারে। রবিবার সকালে জওয়ানের মৃতদেহ বাড়ি পৌঁছতেই মৃতের পরিবার জওয়ানের অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ তুলেছে৷ রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে নন্দীগ্রামের চিল্লগ্রামে৷ মৃতের নাম বুদ্ধদেব পাণ্ডা (২৬)৷

আরও পড়ুন: ইমরানের পাকিস্তানকে ৩০০ মিলিয়ন ডলার দিতে নারাজ মার্কিন সেনা

রবিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মৃত জওয়ান বুদ্ধদেব পাণ্ডার জ্যেঠু বলেন, ‘‘আমাদের ছেলের মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। কয়েকদিন আগেই বুদ্ধদেব বাড়ি এসেছিল। বলছিল খুব চাপে রয়েছি। বুদ্ধদেব মূলত গাড়ির চালকের পদে নিযুক্ত ছিলেন। মৃত্যুর কয়েকদিন আগে এক দুর্ঘটনার কারণে তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়েছিল। তারপর এই ধরনের মৃত্যু মেনে নেওয়া যাচ্ছে না।

হঠাৎ কিভাবে এই ধরনের ঘটনা ঘটল তা আমাদের কাছে রহস্যজনক। তাই আমাদের ছেলের মৃত্যুর সঠিক তদন্তের আর্জি জানাবো সরকারের কাছে। আমরা মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে চাই।’’

আরও পড়ুন: যুগান্তকারী আবিষ্কার! বৃহস্পতিতে রয়েছে অক্সিজেন এবং জলও

প্রসঙ্গত, উত্তরপ্রদেশের লক্ষ্ণৌতে কর্মরত অবস্থায় মৃত্যু হয় নন্দীগ্রামের বাসিন্দা এক সেনা জওয়ানের। পুজোর আগে বাড়ি ফেরার কথা ছিল সেনা জওয়ান বুদ্ধদেবের। ছেলে কবে ফিরবে সেই দিকেই তাকিয়ে বসেছিল বুদ্ধদেবের পরিবার। তবে সেই অপেক্ষা অপেক্ষাতেই রয়ে গেল৷ পুজোর আগে রবিবার বাড়িতে ফিরল তাঁর কফিন বন্দি দেহ।

তবে সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, উত্তরপ্রদেশের লক্ষ্ণৌতে সেনা বাহিনীর ক্যাম্পে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যান নন্দীগ্রামের বাসিন্দা এক সেনা জওয়ান। শুক্রবার বিকেলে স্নানের পর ভেজা কাপড় শুকোতে গিয়ে কোনও ভাবে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন বুদ্ধদেব পাণ্ডা৷ আর তারপরই ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় তাঁর।

আরও পড়ুন: কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ‘চুল’ কেটে শাস্তি গৃহবধূকে

শুক্রবার রাতে এই খবর পাওয়ার পর থেকেই নন্দীগ্রামের চিল্লগ্রামে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। ছেলের মৃত্যুর খবরে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছেন পরিবারের লোকেরা। জওয়ানের মা প্রতিমা পাণ্ডা শারীরিক অসুস্থতার কারণে শয্যাশায়ী৷ দুই ভাইয়ের মধ্যে বড় বুদ্ধদেব। উচ্চমাধ্যমিক পাশের পর বছর ছয়েক আগে সেনা বাহিনীতে যোগদান করেছিলেন সে। সপ্তাহ দুয়েক আগে বাড়ি থেকে কর্মস্থল লক্ষ্ণৌতে ফিরেছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে শেষবার কথা হয়েছিল ছেলের সঙ্গে। মা, ভাই, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী, মেয়ে সবার সঙ্গে কথা হয়েছিল তাঁর।

কিন্তু শুক্রবার রাত আটটা নাগাদ সেনা বাহিনীর ক্যাম্প থেকে দুঃসংবাদ পাওয়ার পর শোক স্তব্ধ পরিবার৷ পরিবারের তরফে বুদ্ধদেবের মৃত্যুর সঠিক তদন্তের আর্জি জানানো হয়েছে। তাঁরা দাবি করেছেন এই মৃত্যু স্বাভাবিক নয়৷ তাই যেন এই মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখা হয়৷

আরও পড়ুন: ইমরানের পাকিস্তানকে ৩০০ মিলিয়ন ডলার দিতে নারাজ মার্কিন সেনা

Advertisement
---
-----