স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: গত বেশ কয়েকদিন ধরেই জালে পড়ছে টনটন ইলিশ৷ কিন্তু বাজারে পদ্মার ইলিশ অমিল৷ মুখ বেজার ভোজন রসিকদের৷ অগত্যা দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানোর মত গঙ্গার ইলিশেই খুশি থাকতে হচ্ছে মাছে ভাতে বাঙালিকে৷

ইলিশ প্রিয়দের সেই যন্ত্রণা দূর করতে এবার গঙ্গাবক্ষে ফারাক্কা ব্যারাজের লকগেট পরিদর্শণ করলেন কেন্দ্র ও রাজ্য মৎস্য দফতরের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল৷ বাঁধের বেহাল ২৫ নম্বর লক গেটটি সংস্কারের জন্য ফারাক্কা ব্যারাজ কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান তাঁরা৷

আরও পড়ুন: ফের মমতার চিন সফরের সম্ভাবনা তৈরি হল

মৎস্যজীবীদের সুবিধায় ১৯৯৬ সালে ফারাক্কা ব্যারাজের ২৫ নম্বর লক গেটটি তৈরি করা হয়৷ এই গেট খোলা থাকায় গঙ্গাবক্ষে বহুদূর পর্যন্ত মাছ ধরার জন্য মৎস্যজীবীরা যেতে পারতেন৷ ফলে গঙ্গার জলে ভেসে আসা পদ্মার ইলিশ মৎস্যজীবীদের জালে উঠতো৷

কিন্তু বিগত বেশ কয়েক বছর ধরে লক গেটটি খারাপ৷ ফলে গেট পেরিয়ে আর মাছ ধরা সম্ভব হয় না৷ তাই জালে ওঠে না পদ্মার ইলিশ৷ গঙ্গার ইলিশের যোগানও কম৷ তাই বেহাল লক গেট সংস্কারের দাবিতে শুক্রবার ব্যারাজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় মৎস্য দফতরে প্রতিনিধি এ কে সাউ৷ ছিলেন রাজ্য মৎস্য দফতরের দুই প্রতিনিধি৷ তাঁরা লক গেটটি ঘুরেও দেখেন৷

আরও পড়ুন: প্রিয় নায়িকার একটি সিনেমা ২৫ বার দেখেছিলেন বাজপেয়ী!

গেট ঠিক হলে গঙ্গাতেই মিলতে পারে পদ্মার ইলিশ৷ মাছ ধরতেও সুবিধে হবে মৎস্যজীবীদের৷ ইলিশের যোগান বাড়লে মুখে হাসি ফুটবে খাদ্য রসিকদেরও৷

----
--