তৃণমূল কর্মী খুনে ধৃত তৃণমূলেই অঞ্চল সভাপতির ভাই

শুভেন্দু ভট্টাচার্য, কোচবিহার: তৃণমূল কর্মী সুভাষ রায়কে পিটিয়ে খুনের ঘটনায় এক যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ। এই মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত এই যুবকের নাম জয় সঙ্কর রায়। এই খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত তৃণমূল কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি কালীশঙ্কর রায়ের ভাই৷ আজ ধৃতকে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে ১৩ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। এদিকে আজই মৃত্যু হয় মৃত সুভাষ বর্মনের মা পবিত্র বর্মনের। তিনি ক্যান্সারে ভুগছিলেন৷ ছেলের মৃত্যুর পর তিনি শোকে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন৷

কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের পাঠছড়ার অবস্থা আজো থমথমে। এলাকার প্রতিবাদী যুবক সুভাষ রায়ের মৃত্যুর পর থেকে ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা গ্রাম। এর মধ্যেই সুভাষের অসুস্থ মায়ের মৃত্যু ক্ষোভ বাড়িয়েছে কয়েক গুণ৷ ক্যান্সার আক্রান্ত মায়ের চিকিৎসার জন্য সে, বিভিন্ন জনের কাছ থেকে টাকা তুলচ্ছিল। যখন তাঁকে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে এসে মারধর করে  স্থানীয় অঞ্চল সভাপতি কালী শঙ্কর রায় ও তাঁর সহযোগিতার, সেই সময় তাঁর কাছে মায়ের চিকিৎসার খরচের জন্য মানুষের কাছ থেকে সাহায্য তোলা প্রায় ১ লক্ষ টাকা ছিল। সেই টাকাও ছিনিয়ে নেয় দুষ্কৃতীরা। বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাইয়ে দিয়ে, তাঁদের কাছে থেকে টাক নিচ্ছিলেন এই অঞ্চল সভাপতি, তাঁর দুর্নীতির বিরুদ্ধেই সরব হয়েছিলেন সুভাষ রায়৷ তাঁর তাঁর ফলেই এই মর্মান্তিক পরিনিতি৷ এদিকে পবিত্র রায়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন কোচবিহার ১ নম্বর তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি খোকন মিয়া।

তিনি জানান, দীর্ঘদিন থেকেই অসুস্থ ছিলেন৷ ছেলের মৃত্যুর পর আরও অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তিনিও তাঁর চিকিৎসার ব্যাপারে আর্থিক ভাবে সাহায্য করেছিলেন বলে জানান। এদিন সুভাষ খুনে তৃণমূল কংগ্রেসের এক অংশের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় তিনি পরিষ্কার জানিয়েছেন যদি অভিযুক্তরা দোষী প্রমাণিত হন তবে দল তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

Advertisement ---
-----